লালমনিরহাটে বন্যায় নদীগর্ভে স্কুলভবন

বন্যায় স্কুলভবন
নদীগর্ভে চলে যাওয়ায় হুমকির মুখে পড়েছে লালমনিরহাটের প্রায় দেড় হাজার শিশুর শিক্ষাজীবন।
করোনার কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকা তিস্তাপাড়ের ৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের
শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলছে বিকল্প ব্যবস্থায়। জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জানান, ভবনের
বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহতি করা হয়েছে।

চলতি বর্ষা মৌসুমে
তিস্তানদীর ভাঙনের কবলে পড়ে লালমনিরহাটের কয়েকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এর
একটি আদিতমারীর ইসমাইল পাড়া প্রাইমারি স্কুল। গোটা ভবন নদীগর্ভে বিলীন হলে করোনার
কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর পাঠদান শুরু হয় অস্থায়ী ঘরে।

উপজেলার গোবর্ধন চর
সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টিও নদীতে বিলীন। ফলে তিস্তাপাড়ে অনেকটা উন্মুক্ত স্থানে
চলছে পাঠদান।

গোটা ভবন নদীতে
বিলীন হওয়ায় হাতীবান্ধা উপজেলার পূর্ব ও পশ্চিম হলদীবাড়ী সরকারি প্রাথমিক
বিদ্যালয়ের পাঠদান চলছে ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সে।

শিক্ষা কর্মকর্তা জানান,
ভবনের বিষয়ে র্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ করা হয়েছে। 

কোমলমতি শিশুদের
ঝরেপড়া রোধ করে শিক্ষা কার্যক্রম নিশ্চিতে দ্রুত ভবন সংকট সমাধানের দাবি জানিয়েছে শিক্ষক-অভিভাবকরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author