মুন্সিগঞ্জে নদীভাঙনের শিকার শতাধিক পরিবারের মানবেতর জীবনযাপন

নদীভাঙনে সব হারিয়ে চার দশক ধরে
মানবেতর জীবন যাপন করছে মুন্সিগঞ্জের আধারা ইউনিয়নের শতাধিক পরিবার। সরকারি আশ্রয়ন প্রকল্পের
আওতায় ইউনিয়নে দুই শতাধিক ঘর বরাদ্দ হলেও এদের কারোর ভাগ্যে শিকে জোটেনি। এ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান
কবির মাস্টার কথা বলতে রাজি না হলেও, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে
উপজেলা প্রশাসন।

চল্লিশ বছর আগে নদীভাঙনের শিকার
হয়ে ঘরবাড়ি ভিটেমাটি হারায় আধারা ইউনিয়নের শতাধিক পরিবার। সেই থেকে তাদের বাস সৈয়দপুর
স্টান থেকে খেয়াঘাট পর্যন্ত রাস্তার দুপাশে। এদের মধ্যে কয়েকটি পরিবারে আছে
বেশ কিছু দৃষ্টি ও শারীরিক প্রতিবন্ধী।

কেবল বাসস্থান নয়, বিশুদ্ধ পানিরও
সংকট রয়েছে। টিউবওয়েল
না থাকায় গৃহস্থালীসহ দৈনন্দিন কাজ চলছে খারের নোংরা পানিতে।

প্রধানমন্ত্রীন আশ্রয়ন প্রকল্পের
আওতায় আধারা ইউনিয়নে দুই শতাধিক পরিবারের মাথা গোজার ঠাই হয়েছে। কিন্তু এদের দিকে ফিরেও
তাকায়নি কেউ। ভোটের
পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কবির হোসেন মাস্টারও তাকাননি এসব পরিবারের প্রতি।

এ নিয়ে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা
করা হলেও ইউপি চেয়ারম্যানের নাগাল পাওয়া যায়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
বললেন, পরিবারগুলোর তথ্য সংগ্রহের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মাথা গোঁজার ঠাঁই হিসেবে এক চিলতে
জমি বা একটি ঘরের ব্যবস্থা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ভূমিহীন এসব পরিবারের
সদস্যরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author