বাড়ছে টিকা গ্রহীতার সংখ্যা

রাজধানীতে বেড়েছে টিকা গ্রহিতার সংখ্যা। এতে চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন টিকাকেন্দ্রের কর্মীরা। চিকিৎসকরা বলছেন, দেশের ৮০ শতাংশ মানুষ বিভিন্ন ভাবে করোনা ভাইরাস বহন করছেন। টিকা গ্রহণের পর আক্রান্তের ঝুঁকি অনেক কম বলে জানান চিকিৎসকরা।

এদিকে, টিকা নেওয়ার জন্য বয়সসীমা কমিয়ে ২৫ নির্ধারণ করা হয়েছে। অন্যদিকে, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় নমুনা পরীক্ষা কেন্দ্রেও দীর্ঘ হচ্ছে মানুষের সারি।

দেশে প্রতিদিনই করোনা সংক্রমন ও মৃত্যুর রেকর্ড গড়ছে। এতে চাপ বাড়ছে হাসপাতালে। পূর্ণ হয়ে গেছে সব আইসিইউ। এমন পরিস্থিতিতে সারাদেশেই বেড়েছে নমুনা পরীক্ষা। বিভিন্ন কেন্দ্রে দীর্ঘ লাইন থাকলেও নমুনা সংগ্রহ নিয়ে সন্তুষ্ট বেশিরভাগ মানুষ। তবে রিপোর্ট পেতে ভোগান্তির অভিযোগ করেন অনেকে।

এদিকে,
স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে দেশে এখন পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ২৪ লাখ মানুষ করোনা ভ্যাকসিনের
আওতায় এসেছে। এরমধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৮০ লাখ ১৮ হজারের বেশি। এখনও দ্বিতীয় ডোজের
অপেক্ষায় আছে ৩৭ লাখের বেশি মানুষ। এরইমধ্যে ভ্যাকসিন গ্রহণে আগ্রহ তৈরি হয়েছে
মানুষের।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. মেজর শেখ হাবিবুর রহমান বলছেন মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা একনয়। টিকা নেয়ার পর প্রতিরোধ ক্ষমতা এসবের ওপর নির্ভর করে।

নিটোর জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. সায়মা কবির জানান, ভ্যাকসিন নিলে সংক্রমণের ঝুকি অনেকাংশেই কমে যায়। তারপরও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপর সবাইকে সমান ভাবে জোর দিতে হবে।

অন্যদিকে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস নিয়ে আপাতত আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানান ডা. সায়মা কবির।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author