পশু বেচাকেনা নিয়ে শঙ্কায় খামারিরা

করোনাকালে পশু কেনাবেচা নিয়ে বেশ শঙ্কায় দেশের খামারি ও গৃহস্থরা। এর মধ্যেই বিভিন্ন জেলায় তাগড়া সাইজের কিছু গরু আগাম নজর কেড়েছে ক্রেতার।

কোরবানির হাটে ঝড় তুলতে প্রস্তুত ময়মনসিংহের ত্রিশালের কালো মানিক। ফ্রিজিয়ান এই ষাঁড়টি ইতোমধ্যেই নজর কেড়েছে সবার। মালিক জাকির হোসেন সুমন জানান, কালো মানিকের পেছনে দৈনিক গড়ে খরচ  দুই হাজার টাকা।  ৩৮ মণ ওজনের ষাঁড়টি লম্বায় ১০ ফুট। দাম হাকা হয়েছে ৩০ লাখ টাকা।

৬ ফুট উচ্চতার কৃষ্ণবর্ণের গোরুটির নাম নবাব। ঢাকার নবাবগঞ্জের মনির আহমেদ অস্ট্রাল জাতের গরুটি পালন শুরু করেন ৪ বছর আগে। নামের সঙ্গে মিল রেখেই মালিক নবারের দাম হাঁকিয়েছেন ১৬ লাখ টাকা।

ধলা মিয়া, ধবেধবে সাদা রংয়ের হলিস্টিন ফ্রিজিয়ান জাতের ষাঁড়টির মালিক গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার জাহিদুল ইসলাম। সাড়ে ২৪ মণ ওজনের গোরুটির দাম চাইছেন ৭ লাখ টাকা।

পশু চিকিৎসক আর
প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর বলছে, পশুর শারীরিক গঠন ওজন দেখে নয়, কেনার আগে খোঁজ নেয়া
দরকার লালন পালনের পদ্ধতি সম্পর্কে।

করোনা
দুর্যোগের মধ্যে যাতে ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করা যায়,সরকারকে সে বিষয়টিতে নজর দেয়ার
দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author