চাল-তেলের বাজারে আগুনে

চাল-তেলের দামের আগুনে পুড়ছে সাধারণ মানুষ। গত সপ্তাহের তুলনায় ৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ২৫ টাকা। বেড়েছে সব ধরণের চালের দামও। মাছ ও সবজির বাজারও ঊর্ধ্বমুখী। একে নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের প্রভাব বলছেন বিক্রেতারা। আর ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট ও বাজার তদারকির অভাবকে দায়ী করছেন ভোক্তারা।

আন্তর্জাতিকভাবে দাম চড়া থাকার অযুহাত দিয়ে কয়েক মাস ধরেই দেশের বাজারে ধাপে ধাপে বাড়ানো হয় ভোজ্য তেলের দাম। সে উত্তাপে নতুন অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ঘি ঢালেন ব্যবসায়ীরা। সপ্তাহের ব্যবধানে লিটারে বেড়েছে ৪ থেকে ৫ টাকা। তেলের মতোই বেশিরভাগ পণ্যমূল্যে বাজেটের প্রভাব পড়েছে।

খুচরা
বিক্রেতারা দোষ চাপাচ্ছেন পাইকারী ব্যবসায়ীদের উপর। আর পাইকারদের সাফ জবাব
আন্তর্জাতিক বাজারের প্রভাব এটি।

পাইকারি
বাজারে প্রকারভেদে চালের কেজিতে দাম বেড়েছে ২ থেকে ৩টাকা পর্যন্ত। খুচরা বাজারে কেজিতে দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৫ থেকে ৬ টাকা। সবজির বাজারে প্রতিটি পণ্যের দাম
কেজিতে বেড়েছে ১০ থেকে ১৫ টাকা। এজন্যে বাজার  তদারকির অভাবকে দূষছেন ক্রেতারা।

আর পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা নিজেদের পক্ষে তুলে ধরলেন নানা অযুহাত। তবে অপরিবর্তিত রয়েছে গরুর মাংস ও মুরগীর দাম। মাছের মূল্য নিয়ে কিছুটা স্বস্তি প্রকাশ করলেন ক্রেতারা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author