দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৭৫৮ জনের। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৮৮৭ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ৭ হাজার ৮৬৭ জনে। সংক্রমনের হার বেড়ে দাড়িয়েঁছে ১০ দশমিক চার শূণ্য ভাগ।

শুক্রবার (৪ জুন) বিকেলে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এদিকে দেশে করোনাভাইরাসের ৫০টি নমুনার
জিনোম সিকোয়েন্সের ৮০ শতাংশই ভারতীয় ধরন বলে জানিয়েছে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট- আইইডিসিআর। আইইডিসিআর এবং ইনস্টিটিউট ফর ডেভেলপিং
সায়েন্স অ্যান্ড হেলথ ইনিশিয়েটিভসের যৌথ গবেষণায় ভারতীয় ধরন ছাড়াও ৮টি সাউথ
আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট, একটি সার্কুলেটিংসহ রয়েছে একটি অজানা
ভ্যারিয়েন্ট। দেশে ৮ মে
প্রথম ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়।

রাজশাহীতে আগের সব রেকর্ড ভেঙে করোনা
আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগের তিন জেলায়
গত ২৪ ঘণ্টায় এই মৃত্যু হয়। শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাদের
মৃত্যু হয়। এর আগে ৩০ মে সর্বোচ্চ ১২ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

এদিকে, করোনার সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় খুলনা নগরীর চার থানা এলাকায় সপ্তাহব্যাপী কঠোর বিধি-নিষেধ শুরু হয়েছে। রূপসা, খুলনা সদর, সোনাডাঙ্গা এবং খালিশপুর থানা এলাকায় জরুরি সেবা ব্যতিত সব দোকানপাট, মার্কেট ও শপিংমল বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, সাতক্ষীরা জেলায় এক সপ্তাহের জন্য বিশেষ লকডাউন শুরু হচ্ছে শনিবার। অন্যদিকে, নওগাঁ পৌরসভা ও নিয়ামতপুর উপজেলায় এক সপ্তাহের বিশেষ লকডাউন চলছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুই সপ্তাহের বিশেষ লকডাউন শেষ হবে ৭ জুন ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author