আসছে বাজেটে আগামী পাঁচ বছর পর্যন্ত সবুজ কারখানার জন্য করপোরেট কর ১০ ও অন্য ক্ষেত্রে ১২ শতাংশ অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছেন তৈরি পোশাকখাতের ব্যবসায়ীরা। পাশাপাশি এ শিল্পের রপ্তানির বিপরীতে প্রযোজ্য উৎসে কর দশমিক ৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে অর্ধেকে আনার প্রস্তাবও দেন তারা।

ব্যবসায়ীরা দাবি জানান, করোনার ক্ষতি কাটাতে আসছে বাজেটে শ্রমিকদের জন্য রেশন প্রদানের বিষয়টি যুক্ত করার। করোনার প্রথম ধকল কাটিয়ে না উঠতেই শুরু দ্বিতীয় ধাক্কা। নেতিবাচক ধারা মোকাবিলা করে এখনও ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি রপ্তানি খাত। ফলে বেড়ে চলছে ঘাটতি।

চলতি অর্থবছরের নয় মাসে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল
৩ হাজার ২৭ কোটি ৯০ লাখ ডলার। বিপরীতে আয় হয়েছে ২ হাজার ৮৯৩ কোটি ৮৩ লাখ ডলার। অর্থাৎ
১৩৪ কোটি ৭ লাখ ডলার ঘাটতি রয়েছে। যা ৪ দশমিক চার-তিন শতাংশ
আর প্রধান খাত পোশাক রপ্তানি কমেছে প্রায় ৬ শতাংশ।

করোনার ক্ষতি কাটাতে আসছে বাজেটে রপ্তানি খাতের জন্য আমদানিকৃত যন্ত্রাংশ শুল্কমুক্ত রাখাসহ বেশ কিছু দাবি তুলে ধরেন ব্যবসায়ী নেতারা। কর আদায় সহজীকরণ, করপোরেট কর কমানো, পোশাক শ্রমিকদের জন্য রেশন ব্যবস্থার দাবিও জানান তারা। প্রস্তাবিত দাবি বিবেচনায় নিলে রপ্তানিখাত আবারও ঘুরে দাঁড়াবে বলে মনে করেন এ দুই ব্যবসায়ী।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author