ভারত সরকারের একগুঁয়েমির কারণে তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা পাচ্ছে না বাংলাদেশ। এ নিয়ে যুগ যুগ ধরে আলোচনা-সমালোচনা হলেও উজানের দেশ হওয়ায় বাংলাদেশকে ঠকিয়ে আসছে ভারত। আর শুষ্ক মৌসুমে পানিসংকটে ভাটির দেশ হিসেবে কৃষিসহ বিভিন্নখাতে চড়া মাশুল গুণছে বাংলাদেশ।

আন্ত:দেশীয় নদীতে উজানের দেশ বাঁধ নির্মাণ করায় আঞ্চলিক দ্বন্দ্ব প্রকট হচ্ছে। এ রকম বাঁধ সবচেয়ে বেশি এশিয়াতে। যে কারণে ভাটির দেশগুলো পানির ন্যায্য হিস্যা থেকে চিরকাল বঞ্চিত হয়ে আসছে। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে পরিবেশ, জীববৈচিত্র ও জীবিকায়।

অভিন্ন নদীর পানিবন্টনের
কার্যকর মীমাংসা করতে না পারায়, অনেক সময় কোন আলোচনা ছাড়াই উজানের দেশ একতরফা পানি
প্রত্যাহার করে নিচ্ছে। যার খেসারত দিতে হচ্ছে ভাটির প্রাণ-প্রকৃতিকে।

অভিন্ন নদীর পানি ভাটির দেশের মানুষের স্বীকৃত অধিকার। এ নিয়ে উজানের দেশের ভূমিকা অনেকটা রূপকথার রাক্ষসের মতো বলে জানান বাপার সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল। কৌশলের বিপরীতে পাল্টা কৌশল নয়, সমঝোতার ভিত্তিতে পানি ভাগাভাগিতে ঐক্যমতে পৌঁছাতে হবে বলে জানান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের প্রফেসর ড. নূরুল ইসলাম।

পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে অভিন্ন নীতিমালা তৈরির তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বলেন, সংকট সমাধানে অভিন্ন নীতিমালার তৈরির বিকল্প নেই।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author