ফিলিস্তিনে ইসরাইলী বর্বরতা যেন থামছেই না। ঈদের দিনেও এক চুল হামলা থেকে ছাড় দেয়নি ফিলিস্তিনীদের। বিমান ও স্থল বাহিনীর যৌথ আক্রমণে মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে দেশটি। পাল্টা প্রতিশোধ হিসেবে ইসরাইলের আরেকটি বিমানবন্দরে হামলা চালিয়েছে হামাস। নিজের জন্মভূমি না ছাড়ার অঙ্গীকার করেছেন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

গাজায়
ইসরাইলী হামলা আরও তীব্র হয়ে উঠছে। বিমান ও স্থল পথে যৌথ হামলা শুরু
করেছে দখলদার বাহিনী। সীমান্তে ট্যাংক মোতায়েন করে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে তেল
আবিব। এতে শিশুসহ নিহত হয়েছে শতাধিক।

জবাবে দক্ষিণাঞ্চলীয় রামন বিমানবন্দরে হামলা চালিয়েছে হামাস। এতে সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে যায় বিমান বন্দরের কার্যক্রম। এছাড়া ইসরাইলকে লক্ষ্য করে দক্ষিণ লেবানন থেকে কয়েকটি রকেট নিক্ষেপ করা হয়। মধ্যপ্রাচ্যের এ সংঘাত নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে এমন আশঙ্কায় থেকে এ অঞ্চলে নতুন দূত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এদিকে ফিলিস্তিন- ইসরাইল ইস্যুতে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে নিরাপত্তা পরিষদ।

ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস,ইসরাইলী
 আগ্রাসন সীমা লঙ্ঘণ করছে উল্লেখ করে নিজ জনগণকে রক্ষায়
সব ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানান ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ
আব্বাস। এছাড়া, যুদ্ধবিধ্বস্ত ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়ানোয় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট
রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগানকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান  আল-আকসা মসজিদের ইমাম শেখ ইকরিমি সাবরি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author