মিতু হত্যায় বাবুল ৫ দিনের রিমান্ডে

চট্টগ্রামে চাঞ্চল্যকর মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যায় তার স্বামী ও পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারকে ৫ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১২ মে) দুপুরে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সরওয়ার জাহানের আদালত রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে, বুধবার দুপুরে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তারসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন।

বুধবার সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ ব্যুরো অব
ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার জানান, মিতু হত্যায় বাবুল
আক্তারেরর সম্পৃক্ততা পাওয়ায় তাকে পিবিআইয়ের হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

এদিকে, চট্টগ্রাম নগরীতে মিতুকে কুপিয়ে ও গুলি করে
হত্যার ঘটনায় আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব
ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রামের জিইসি মোড়ে ছেলেকে
স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয় মাহমুদা
আক্তার মিতুকে। এ ঘটনায় পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যা
মামলা করেন মিতুর স্বামী পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তার। পরে মামলটি
গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

২০১৬ সালে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গোয়েন্দা
পুলিশ। ওই বছরের ৬ই সেপ্টেম্বর তাকে পুলিশ সুপারের পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে
প্রজ্ঞাপন জারি করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এরপর ২০২০ সালে আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্ত ভার পায়
পিবিআই। এরপর, গত সোমবার বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকা থেকে
চট্টগ্রাম পিবিআই কার্যালয়ে নেয়া হয়।

মিতু হত্যাকাণ্ডের পর ধারণা করা হয় জঙ্গিরা এ
হত্যাকাণ্ডে জড়িত। কারণ হিসেবে ধারণা করা হয় বাবুল আক্তার জঙ্গিবিরোধী
অপারেশনে প্রথম সারির পুলিশ কর্মকর্তাদের একজন ছিলেন। পরবর্তীতে হত্যার
ঘটনা ভিন্নদিকে মোড় নেয়। হত্যাকাণ্ডের পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা
হত্যাকাণ্ডের জন্য বাবুল আক্তারকে দায়ী করে তার বিচার দাবি করে আসছিলেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author