চীনের দেয়া উপহারের করোনার টিকার চালান বাংলাদেশেকে হস্তান্তর করেছে চীন। এর আগে ঢাকায় পৌঁছায় চীনের দেয়া উপহারের ৫ লাখ ডোজ করোনার টিকার চালান। ভোর সাড়ে ৫টায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি বিশেষ ফ্লাইট টিকা নিয়ে বেইজিং থেকে ঢাকায় পৌঁছায়।

বুধবার (১২ মে) দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্র ও স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে উপহারের টিকা তুলে দেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। তিনি বলেন, চীনে ব্যাপক চাহিদা থাকা স্বত্বেও বন্ধত্বের সম্পর্কের কারণে বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে।

চীনের উপরাষ্ট্রদূত হুয়ালং ইয়ান জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপহারের টিকা বাংলাদেশ নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং আনুষ্ঠানিকভাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের কাছে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় হস্তান্তর করা হয়।

গত সোমবার ঢাকায় ভার্চ্যুয়াল সম্মেলনে চীনের রাষ্ট্রদূত বলেন, চীনের টিকার চাহিদা অনেক দেশের আছে। তাই বাণিজ্যিকভাবে যেটা বাংলাদেশ পেতে চায়, সেই টিকা পেতে বাংলাদেশের সময় লাগবে। তা ছাড়া বাংলাদেশ এক সপ্তাহ আগে শুধু সিনোফার্মের টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে।

দু:সময়ে পাশে দাড়ানোয় চীন সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বলেন, আরো বেশি আকারে ভ্যাকসিন পাওয়ার জন্য চীনের সঙ্গে আলোচনা চলছে। এসময় তিনি বলেন মানুষের বেপরোয়া আচরণে সরকার মর্মাহত। অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, চীনের ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে। এজন্য এ টিকার বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author