গাজায় ইসরাইলি বাহিনীর বিমান হামলায় ২২ মৃত্যুর ঘটনায় ফুঁসে উঠেছে ফিলিস্তিনিরা। পাল্টা জবাব হিসেবে ইসরাইলে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে হামাস। যদিও এতে হতাহতের কথা জানায়নি ইসরাইল। এদিকে, উত্তেজনা কমাতে সব পক্ষকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

স্থানীয় সময় সোমবার (১০ মে) রাতে গাজার হামাস অধ্যুষিত উপকূল থেকে ইসরাইলে রকেট হামলা চালানো হয়, এমন অভিযোগ এনে ফিলিস্তিনে বিমানহামলা চালায় তেলআবিব। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু বলেন, হামাস রেডলাইন অতিক্রম করায় পাল্টা জবাব দেয়া হয়েছে।

হামলায়
৯ শিশুসহ অন্তত ২২ জন নিহত হয়েছে বলে জানায় ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। হামাস
সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে গেলে আরও কঠিন জবাব দেয়ার হুশিয়ারি দেন নেতানিয়াহু।

এদিকে বিমান হামলার প্রতিবাদে গাজায় বিক্ষোভ করেন ফিলিস্তিনরা। পাল্টা জবাব হিসেবে ইসরাইলে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে হামাস। এতে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। পরিস্থিতিকে বিস্ফোরোন্মুখ উল্লেখ করে সাধারণ জনগণের কথা চিন্তা করে দু’পক্ষকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

এর
আগে, সোমবার ভোরে পবিত্র আল-আকসা মসজিদে  তাণ্ডব চালায় ইসরাইলি বাহিনী। এতে ৩ শতাধিক ফিলিস্তিনি
আহত হয়। পবিত্র জুমাতুল বিদা এবংশবে কদরের রাতেও তাণ্ডব চালায় তারা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author