নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান নুরনবী চৌধুরী (৬৬) গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তিনি সিরাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং একই এলাকার মৃত ফজলে রহমানের ছেলে। সোমবার (১৯ এপ্রিল ) সকাল ১১টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মাস্টার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাভাপতি বীর
মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান জানান, আবদুল কাদের মির্জার নির্দেশে তার
অনুসারী বসুরহাট পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের সন্ত্রাসী কেচ্ছা রাসেলসহ দশ
থেকে পনের জন আজ সকালে অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে পৌরসভার মাস্টার পাড়া এলাকায়
ওঁৎপেতে ছিল।

নুরনবী চৌধুরী মোটরসাইকেল যোগে নিজ বাড়ি থেকে কয়েকজন
অনুসারী নিয়ে বসুরহাট বাজারে আসার পথে পৌরসভার মাস্টার পাড়া এলাকায় পৌঁছলে
আগে থেকেই ওঁৎপেতে থাকা কেচ্ছা রাসেল ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা তাকে লক্ষ্য করে
গুলি ছুঁড়লে তিনি দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। পরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সন্ত্রাসী
কেচ্ছা রাসেল ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা তাকে পিটিয়ে দুই পা ভেঙ্গে দেয়।

এক পর্যায়ে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কোম্পানীগঞ্জ
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে উন্নত
চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন জানান, নুরনবী
চৌধুরী হামলায় আহত হয়েছেন। সেখানে এক রাউন্ড গুলি হয়েছে বলে শুনেছি। তাকে
উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা
নেবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author