পদত্যাগ করলেন কাদের মির্জা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে পদত্যাগ করেছেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

বুধবার (৩১ মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে নিজের ফেইসবুক অ্যাকাউন্টে স্ট্যাটাস দিয়ে, ভবিষ্যতে কোন নির্বাচনে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দেন তিনি। টানা ২৭ বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন কাদের মির্জা।

এসময় কাদের মির্জা বলেন, ‘আমি সব অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে কথা বলে এখন সবার কাছে খারাপ হয়ে গেছি। যে দলে সম্মান নাই সেখানে আমি থাকবো না। আমি বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সদস্য হয়েছি সেখানে থেকেই কাজ করবো।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনি একসাথে না পারলেও আস্তে আস্তে দলের দুর্নীতিবাজদের লাগাম টেনে ধরুন। যারা বেশি অনিয়মকারী তাদেরকে দল থেকে বের করে দিন। এ সময় তিনি বলেন, অতীতে যে প্রতিশ্রুতি গুলো দিয়েছি তা রক্ষা করে আমি বিদায় নিতে চাই। আমি আর প্রশ্নবিদ্ধ হতে চাই না, আমি দল থেকে বিদায় নিচ্ছি। এতদিন আ.লীগের মির্জা ছিলাম। আওয়ামী লীগের মির্জা আজ থেকে আমি নেই। কোন শক্তি আমাকে আর আ.লীগের মির্জা বানাতে পারবে না।

এদিকে, বসুরহাটে সংঘর্ষে শ্রমিক লীগ নেতা আলাউদ্দিন হত্যার ঘটনা পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। বুধবার (৩১ মার্চ) দুপুরে জেলার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক এসএম মোসলেহ উদ্দিন মিজান এ আদেশ দেন। মামলায় কাদের মির্জা ছাড়াও তার ভাই সাহাদাত হোসেন ও ছেলে মাশরুর কাদের তাসিক মির্জাসহ ১৬৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author