জমিসহ ঘর পাচ্ছে ৬৬ হাজার ১৮৯ পরিবার

আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় এক হাজার ১৬৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা ব্যয়ে জমিসহ ঘর পাচ্ছে ৬৬ হাজার ১৮৯টি পরিবার। একসঙ্গে ৬৬ হাজারের বেশি অসহায় পরিবারকে জমিসহ ঘর উপহার দিয়ে অনন্য নজির স্থাপন করতে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আগামীকাল শনিবার (২৩ জানুয়ারি) ভার্চুয়ালি সারাদেশে ঘরগুলোর চাবি তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর মুজিববর্ষেই ঘর পাবেন এক লাখ গৃহহীন পরিবার। প্রকল্প পরিচালক জানিয়েছেন, ভূমিহীন, গৃহহীন, ছিন্নমূল অসহায় জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসনের জন্য দেয়া হবে এসব ঘর আর আগামী বছরের মধ্যে মাথাগোঁজার ঠাঁই পাবে ৯ লাখ পরিবার।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস। বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন মুজিববর্ষে কোনো মানুষ গৃহহীন থাকবে না। প্রতিটি পরিবারকে আলাদাভাবে ঘর করে দেয়ার কর্মসূচি নিয়েছেন। করোনার মধ্যে ছয়মাসেরও কম সময়ে এসব ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। এসব ঘর নির্মাণে ব্যবহৃত হচ্ছে দুই হাজার ৯৮ একর সরকারি খাস জমি।

প্রধানমন্ত্রীর দর্শন হচ্ছে, কাউকে যদি ছাদ দেয়া হয় তার মাধ্যমে তার
দারিদ্র্য বিমোচনের ভিত্তি স্থাপিত হয়। আত্মসম্মান প্রতিষ্ঠিত হওয়ার
মাধ্যমে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়।

তিনি আরও বলেন, দেশব্যাপী নির্মিত এসব বাড়ির জন্য উপজেলা পর্যায়ে বরাদ্দ
ও কমিটি করে দেওয়া হয়েছে। সে কমিটি নিজেরা নির্মাণসামগ্রী কিনে বাড়িগুলো
বানাচ্ছে। সাধারণভাবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও দরপত্রের মাধ্যমে কাজ করা হলেও
এটি সরাসরি স্থানীয় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও
সরকারি তরুণ কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধানে নির্মাণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, দেশে ভূমিহীন, গৃহহীন পরিবারের সংখ্যা তিন লাখের কিছু কম। জমি আছে ঘর নেই এমন পরিবার আছে ছয় লাখের কিছু কম। প্রায় নয় লাখ পরিবার আছে। প্রথম পর্যায়ে ৬৬ হাজার পরিবারকে ঘর দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তী পর্যায়ে আগামী এক মাসে ঘর পাবে প্রায় এক লাখ পরিবার। এটি চলমান থাকলে আগামী দুই বছরের মধ্যে সবাইকে ঘর দেওয়ার কাজ সম্পন্ন করতে পারবো বলে আশা করছি। ১০ লাখ মানুষ মাথার নিচে ছাদ, সুপেয় পানি ও বিদ্যুৎ পেলে কী পরিমাণ কল্পনাতীত মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে চলে যাবে।  

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author