২৫ থেকে ৩১ অক্টোবর জনশুমারি

আগামী ২৫ থেকে ৩১ অক্টোবর সারাদেশে মাঠপর্যায়ে মূল জনশুমারি ও গৃহগণনা অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো অডিটোরিয়ামে, এ সংক্রান্ত জোনাল প্রশিক্ষণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। জানান, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষে ষষ্ঠ জনশুমারি ও গৃহগণনা কার্যক্রম চারধাপে সম্পন্ন হবে। তিনি আরও বলেন, প্রতিবছর স্বল্পোন্নত দেশের যে তকমা দেয়া হয়, তা পাতানো খেলা।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সারাদেশের ১৪৪ জন জোনাল কর্মকর্তা এ প্রশিক্ষণে অংশ নিচ্ছেন। জোনাল অপারেশন প্রথম পর্যায়ে মাঠ পর্যায়ের তথ্য সংগ্রহ কার্যক্রম আগামী ২৩ জানুয়ারি থেকে ২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পরিচালিত হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সঠিক তথ্যের কোনো বিকল্প নেই। টিম ওয়ার্ক করতে হবে। প্রচার প্রচারণা ব্যাপকভাবে চালাতে হবে। আগে মানুষ বলতো বিশ্বব্যাংক কি বলে। এখন মানুষ বলে বিবিএস কি বলে। এ আগ্রহটা তৈরি হয়েছে। এটা ধরে রাখতে হবে। 

প্রকল্প পরিচালক কবির উদ্দিন বলেন, জনশুমারি ও গৃহগণনা-২০২১ মোট ৪টি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। এগুলো হলো- পর্যায়-১ এর আওতায় শুমারির ব্লক এলাকা প্রণয়ন, জিআইএস পদ্ধতি ব্যবহার করে দেশের সব এলাকা ম্যাপ ও জিও কোডের আওতায় স্বতন্ত্র সনাক্তকরণ মাধ্যমে চিহ্নিত করা হবে। পর্যায় ২-এর আওতায় দেশের সব থানা, ব্যক্তি এবং আবাসন ইউনিট গণনা করা হবে। পর্যায়-৩ এর আওতায় শুমারি পরবর্তী জরিপ পরিচালনা শুমারির গুণগতমান পরিমাপ করা হবে। পর্যায়-৪ এর আওতায় আর্থ-সামাজিক ও জনমিতিক জরিপ পরিচালনা খানা ও জনসংখ্যা সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী। সভাপতিত্ব করেন মহাপরিচালক তাজুল ইসলাম। 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author