বন্ধ হলো ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনে হামলার ঘটনায় স্থায়ীভাবে বন্ধ হলো মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট। ট্রাম্প সমর্থকদের হামলার জেরে, সতর্ক বার্তা দেয়ার পর নিয়ম ভঙ্গ করায় শুক্রবার এমন সিদ্ধান্ত নেয় টুইটার। ট্রাম্পের সমর্থকরা যুক্তরাষ্ট্রে আবারো সহিংসতা করতে পারে এমন আশঙ্কা থেকেই ট্রাম্পের অ্যাকাউন্টটি স্থায়ীভাবে বন্ধ করা হলো বলে জানিয়েছে টুইটার।

টুইটার বলছে “@realDonaldTrump অ্যাকাউন্ট থেকে টুইটগুলো গভীর পর্যবেক্ষণ এবং সেটাকে ঘিরে যে প্রেক্ষাপট তৈরি হয়েছে তার ভিত্তিতে তারা এই সিদ্ধান্তটি নিয়েছে।

এর আগে ট্রাম্পের অ্যাকাউন্টটি টুইটার কর্তৃপক্ষ ১২ ঘণ্টার জন্য অচল করে রেখেছিল। টুইটার তখন সতর্ক করে বলেছিল, তারা ট্রাম্পকে চিরস্থায়ীভাবে নিষিদ্ধ করবে যদি তিনি এই প্ল্যাটফর্মের নিয়মনীতি ভঙ্গ করেন। ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করার প্রতিক্রিয়ায় তার ২০২০ সালের ক্যাম্পেইন উপদেষ্টা জ্যাসন মিলার টুইট করেছেন “জঘন্য, আপনি যদি ভাবেন তারা পরবর্তীতে আপনার দিকে আসবে না তাহলে আপনি ভুল করছেন”।

গুগল বলেছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলমান সহিংসতা উস্কে দিচ্ছে যেসব পোস্ট, তেমন কিছু পার্লার অ্যাপে অনবরত পোস্ট করা হচ্ছে। সে সম্পর্কে আমরা সতর্ক আছি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ফেসবুক জানায়, তারা ট্রাম্পকে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য নিষিদ্ধ করেছে। এছাড়াও জনপ্রিয় গেমিং প্ল্যাটফর্ম টুইস্ট ট্রাম্পকে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ করেছে। এই চ্যানেল ব্যবহার করে তিনি তার সমাবেশ সম্প্রচার করতেন। স্ন্যাপচ্যাট থেকেও নিষিদ্ধ তিনি।

উল্লেখ্য, আমেরিকার আইন-প্রণেতারা গত বুধবার যখন নভেম্বরের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে জো বাইডেনের জয় আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন করার জন্য অধিবেশনে বসেছিলেন, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শতশত সমর্থক তখন আমেরিকার আইনসভা কংগ্রেসের ভবন ক্যাপিটলে ঢুকে পড়ে। কয়েক ঘণ্টা ভবন কার্যত দখল করে রাখার পর বিক্ষোভকারীরা ধীরে ধীরে ক্যাপিটল প্রাঙ্গণ ছেড়ে বাইরে চলে যেতে থাকে। ওই দিনের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author