কুমিল্লায় আইনের তোয়াক্কা না করে ভরাট হচ্ছে পুকুর

পরিবেশ সংরক্ষণ করা যার দায়িত্ব, সেই পরিবেশ অধিদপ্তরের পাশেই পুকুর ভরাট করে তৈরি হয়েছে বর্জ্যের ভাগাড়। এমনি চিত্র কুমিল্লা নগরীর কাপ্তান বাজার এলাকার। অবৈধভাবে শতবর্ষী পুকুর দখল করে ময়লা ফেলায় দুর্গন্ধে দূষিত হচ্ছে পুরো এলাকা আর বিপন্ন হচ্ছে পরিবেশ। এছাড়াও পুকুর দখল আর নদী ভরাটের দেখা মেলে কুমিল্লার বিভিন্ন স্থানে।

পরিবেশ আইন-১৯৯৫ ও জলাধার সংরক্ষণ আইন-২০০০ এর বিধান অনুসারে যে কোনও জলাশয় ভরাট নিষিদ্ধ। তবে আইনকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে কুমিল্লা নগরীর কাপ্তান বাজার এলাকায় এক সময়ের লর্ড কার্জনের আবাস ভূমি হিসেবে পরিচিত ছোটরা কার্জন কুটিরভুক্ত শতবর্ষী পুকুরটি ভরাট হয়ে যাচ্ছে।

পুকুরের সৈন্দর্য হারিয়ে পরিনত হয়েছে মশার উৎপত্তি স্থলে। এতে আশপাশে ছড়াচ্ছে বিভিন্ন রোগজীবানু।

শতবর্ষী পুকুর ছাড়াও কুমিল্লার ঐতিহ্য গোমতী নদী নিয়েও ক্ষুব্দ, পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন নেতারা। পুকুরটি পরিষ্কার বা সংস্কার করার ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শওকত আরা কলি।

অভিযোগের আঙ্গুল ওই এলাকার ভূমি খেকোর বিরুদ্ধে। পরিবেশ অধিদপ্তরের পাশে এমন চিত্র দেখে হতবাক স্থানীয়রা। তাদের আশা পরিবেশ রক্ষায় সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর সচেতন হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহেণের মাধ্যমে এসব পুকুর ভরাট বন্ধ করবে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author