প্রতিটি রাজনৈতিক আন্দোলনে রক্ত দিয়েছে ছাত্রলীগ

লেখাপড়ায় মনোনিবেশের পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে সামনের পানে এগিয়ে যেতে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৪ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনিস্টিটিউটে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বাষিকীর আলোচনায় এ নির্দেশনা দেন তিনি। পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে স্বাধীনতার মূল্যবোধকে জিয়াউর রহমান নস্যাৎ করতে চেয়েছিলেন বলে অভিযোগও করেন সরকার প্রধান।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, বিশেষ করে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে হত্যা করার পর জেনারেল জিয়াউর রহমান যখন অবৈধভাবে সংবিধান লঙ্ঘন করে নিজেকে রাষ্ট্রপতি ঘোষণা দিয়ে ক্ষমতায় বসলো। তার আগে সে মদদ দিয়েছিলেন খন্দকার মোশতাককে। পরে মোশতাককে হটিয়ে নিজে রাষ্ট্রপতি হলেন। এরপর তার যে কাজ ছিল, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম, অত্যাচার করা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের মানুষ অসহযোগ আন্দোলন করে। অস্ত্র তুলে নিয়ে যুদ্ধ করে আমরা বিজয় অর্জন করি। কিন্তু স্বাধীনতাবিরোধী চক্র তারা তো সক্রিয় ছিল। বলেন, ‘উন্নয়নের যে আদর্শ নিয়ে বাংলাদেশ গড়ে উঠেছিল জিয়াউর রহমান সেই আদর্শকেই ধ্বংস করেছিল। জিয়াউর রহমান ছাত্রলীগের নেতাদের তার দলে টানতেন। না হলে তাদের গুম করা হতো।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। সারাবিশ্ব বাংলাদেশকে ভিন্নভাবে দেখে। করোনার কারণে হয়ত আমরা একটু থমকে গেছি।’

ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ছাত্রলীগের ভূমিকা উল্লেখ করে সংগঠনের এই অভিভাবক বলেন, ‘যে কোনো আন্দোলন সফল করতে সংগঠন দরকার। ছাত্রলীগ যে কোনো আন্দোলনেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। বৈশ্বিক এই মহামারির মধ্যে ছাত্রলীগ দেশের সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সংগঠনের ভূমিকাকে উজ্জ্বল করেছে।’

সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়। সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য সঞ্চালনা করেন। এ সময় আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাসহ কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author