ভারতের নিষেধাজ্ঞায় হতাশ দেশের সাধারণ মানুষ

করোনার ভ্যাকসিন রপ্তানিতে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের নিষেধাজ্ঞায় হতাশা জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ। তাদের মতে, জীবন বাঁচাতে যেহেতু ভ্যাকসিনের প্রয়োজনীয়তা জরুরি তাই কেবল ভারত ছাড়াও অন্য দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করা দরকার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভ্যাকসিন নির্বাচনের বিষয়টি আরো স্বচ্ছ এবং বিজ্ঞানভিত্তিক হওয়া উচিত।

যে ভ্যাকসিনের দিকে তাকিয়ে ছিলো বাংলাদেশ; সেই অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ভারত। এ ভ্যাকসিনটির দাম অন্যান্য ভ্যাকসিনের তুলনায় অনেকটাই কম। আর তা পেতে গেলো নভেম্বরে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হয় বাংলাদেশ সরকার, সিরাম ইনস্টিটউট এবং বেক্সিমকো ফার্মার সাথে।

আশা করা হচ্ছিলো জানুয়ারির শেষ দিকে বা ফেব্রুয়ারির প্রথমেই পাওয়া যাবে
টিকা। তবে সিরাম ইনস্টিটিউটের প্রধান আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা এপিকে জানায়, ভারতের চাহিদা পূরণের পরেই তা রপ্তানির অনুমোদন দেয়া হবে।

সাধারণ মানুষ বলছেন, একটি ভ্যাকসিনের উপর নির্ভরশীল থাকা উচিত নয়। যোগাযোগ করতে হবে অন্যদেশের সঙ্গে। দ্রুত ভ্যাকসিন পেতে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়াতে সরকারকে পরামর্শ দিয়েছেন বিএসএমএমইউর সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান। সেই সাথে তাগিদ দিয়েছেন ভ্যাকসিন পেতে বিশ্বের বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে যোগাযোগ করার জন্য।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author