করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে শিশুরা আক্রান্ত

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বাড়ছে শিশু রোগীর সংখ্যা। মা-বাবার খামখেয়ালিপনা ও উদাসীনতার কারণে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন ডাক্তাররা। আর করোনার ভয়াবহতা নিয়ে মানুষের অবহেলার কারণেও বাড়ছে সংক্রমণ। যদিও এ নিয়ে অভিভাবকদের না ঘাবড়ানোর পরামর্শ দিয়ে উপযুক্ত চিকিৎসায় শিশুরা দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠে বলেও জানান তারা।

ঠাণ্ডা-কাশির মত উপসর্গ থাকা শিশুদের নিয়ে হাসপাতালে আসছেন অসংখ্য অভিভাবক। সাধারণত ৫ বছরের শিশু, যারা দুরন্তপনায় বেশি পটু অথবা বলা যায় স্বাস্থ্যবিধি পালনে অভ্যস্ত নয়, তারাই তুলামূলক বেশি করোনাক্রান্ত হচ্ছে।

চিকিৎসকের মতে, চলাফেরা –মেলামেশায় সুনির্দিষ্ট বিধিনিষেধ না থাকার কারণে শিশুদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছে কোলাহলপূর্ণ স্থানে। যা ডেকে আনছে বিপদ।

গুরুতর রোগে আক্রান্ত না হলে করোনাক্রান্ত শিশুরা চিকিৎসায়
ভালো হচ্ছে জানিয়ে মা-বাবাদের দুশ্চিন্তা না করার পরামর্শ দিলেন এ চিকিৎসক। বাড়তি সতর্কতা হিসেবে শিশুকে বেশি বেশি প্রোটিন, ভিটামিন সি
ও ডি সমৃদ্ধ খাবার দেয়ার পাশাপাশি যতটা সম্ভব বাইরে না বেরোনোর পরামর্শও দিয়েছেন
তিনি।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author