বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নয়, সারা বিশ্বের

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে পারলে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে দাঁড়াবে বাংলাদেশ, এমন মন্তব্য করেছেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

বুধবার (২৫ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিসিসি ভবনে বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্রান্ড উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি। এখাতে দেশের উদ্যোক্তাদের অনুপ্রেরনা যোগাতে সব ব্যবস্থা হয়েছে উল্লেখ করে, উদ্ভাবনী চিন্তায় মনোনিবেশ করতে তরুণদের প্রতি আহ্বানও জানান প্রতিমন্ত্রী।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন আদর্শ বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য অনুকরণীয় এবং অনুপ্রেরণাদায়ী দৃষ্টান্ত। তিনি বলেন, তরুণদের অনুপ্রাণিত ও উৎসাহিত করতে চাইলে বঙ্গবন্ধু জীবন আদর্শ ও রাজনৈতিক দর্শন বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজেন্মর কাছে তুলে ধরতে হবে। তাহলে তারা কখনো জীবন সংগ্রামে পরাজিত হবে না। বলেন, উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকদের উৎসাহিত করতে ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্টে’র আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট’ শুধু মুজিববর্ষেই নয়, বাৎসরিক ইভেন্ট হিসেবে প্রতিবছর আয়োজন করা হবে। বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশেরই নয়, সারা বিশ্বের। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন আদর্শকে অনুপ্রাণিত করতে ইনোভেশন গ্র্যান্ট প্লাটফর্মে সারা বিশ্বের তরুণ উদ্ভাবকদের জন্য স্বপ্ন পূরণের আকর্ষণীয় প্লাটফর্ম হিসেবে গড়ে তোলা হবে। তিনি বলেন, আইসিটি বিভাগ কর্তৃক মুজিববর্ষে ইনোভেশন গ্র্যান্টসহ প্রযুক্তিনির্ভর ২০টি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম, আইডিয়া প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক।

বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আগ্রহী তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক উদ্যোক্তারা www.big.gov.bd এই ওয়েবসাইটে গিয়ে নিবন্ধন করতে হবে। দেশীয় উদ্যোক্তারা আগামী ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ এবং বিদেশি উদ্যোক্তারা ২৫ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত নিবন্ধন করতে পারবেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author