সশস্ত্র বাহিনীতে দেশপ্রেমিকদের দায়িত্ব দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

সার্বভৌমত্বের প্রতি বিশ্বাস রেখে যারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করবে, এমন কর্তকর্তাদের হাতে দায়িত্ব তুলে দিতে সেনা বাহিনীর সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) সকালে গণভন থেকে সেনাবাহিনীর পর্সদ সভায় ভার্চ্যুয়ালী যুক্ত হয়ে এ আহ্বান জানান তিনি। বলেন দেশপ্রেম থাকলে যে কোন সংকটে মানুষের মঙ্গলের জন্য কিছু করার মানসিকতা তৈরী হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,’স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষার পাশাপাশি আর্থসামাজিক উন্নয়নের মাধ্যমে আমরা এই দেশটাকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আর সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা আমাদের নীতিমালাও নিয়েছি। আমরা চাই, আমাদের যে সশস্ত্র বাহিনীর নির্বাচন পর্ষদ, এই নির্বাচন পর্ষদে ভবিষ্যতে যারা প্রমোশন পাবে তাদেরকে আপনারা নির্বাচিত করবেন।’

বলেন, ব্যক্তিগত পছন্দের ঊর্ধ্বে থেকে দেশপ্রেমিক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, সততা, দক্ষতা, পেশাদারিত্বকে অগ্রাধিকার দিয়ে ন্যায়নীতির ভিত্তিতে সশস্ত্র বাহিনীতে পদোন্নতি দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

সশস্ত্র বাহিনীর নির্বাচনী পর্ষদের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের ওপর নিজের
আস্থা রয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটুকু অনুরোধ করবো ব্যক্তিগত
পছন্দ-অপছন্দের ঊর্ধ্বে উঠে উপযুক্ত কর্মকর্তারা যাতে প্রমোশনটা পায়।

সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু খাতা কলমে বেশি নাম্বার পাওয়া না, যারা ফিল্ডে ভাল কাজ করতে পারে বা কম্বাইন্ড করতে পারে বা নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতা আছে কি না বা তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার মতো ক্ষমতা আছে কি না, সেই মানসিকতা আছে কিন না সেগুলোও আপনাদের বিচারে আনতে হবে।’

‘আর আমরা এই দেশ স্বাধীন করেছি লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে। শহীদের রক্ত
আমরা বৃথা যেতে দিতে পারি না। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যারা বিশ্বাসী,
বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বে যারা বিশ্বাসী, যারা বাংলাদেশের
উন্নয়নে বিশ্বাসী নিশ্চয়ই তাদের সেই আদর্শ নিয়ে চলতে হবে। দেশপ্রেমিক এবং
মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যারা বিশ্বাসী হবে, তারাই যেন দায়িত্ব পায়। যাতে সঠিক
পথে বাংলাদেশটাকে তারা ভবিষ্যতে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে।’

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author