শ্রীমঙ্গলে গিরিখাতের সন্ধান

মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গলের গভীর জঙ্গলে কয়েকটি গিরিখাতের সন্ধান মিলেছে। দূর্গম পাহাড়ী এলাকায় সদ্য নাম দেয়া নৈস্বর্গিক স্বর্গউদ্যানে আবিষ্কার হওয়া তিনটি গিরিখাত হাজার বছর আগের বলে ধারণা করা হচ্ছে। সন্ধান মিলেছে কয়েকটি জলপ্রপাত ও ঝর্ণার।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় প্রাকৃতিক পরিবেশ দেখতে গিয়ে একজন গণমাধ্যমকর্মী ও কয়েকজন প্রকৃতিপ্রেমী  ঘন জঙ্গলে খুজে পান প্রাচীন গিরিখাত। হাজার বছর জলধারা প্রবাহিত হয়ে গিরিখাত গুলোর দু’পাশ খাড়া পাথরে পরিনত হয়। পানির ক্রমাগত ধারায় পাহাড়ের গায়ে সৃষ্টি হয় মনমাতানো কারুকাজ। বিষয়টি তারা জেলা ও উপজেলা প্রশাসনকে জানান। পরে নিসর্গ গিরিখাত, উল্কা গিরিখাত ও ব্যাকুল গিরিখাত নামকরণ করা হয় প্রশাসন থেকে।

ওই বনাঞ্চলে তারা খুজে বেশ কয়েকটি ঝর্ণা ও ঝর্ণা সৃদশ্য জলপ্রপাতের। শ্রিমঙ্গলে আবিস্কৃত গিরিখাতগুলো বিশ্বের অন্যান্য গিরিখাতের মতোই। দেখতে রোমাঞ্চকর হলেও যাতায়াতের পথে আছে অনেক ঝুঁকি। এখনই সেখানে না যাওয়ারও পরামর্শ দিলেন মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন। আর শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নজরুল ইসলামের মতে পর্যটনের নতুন দ্বার উন্মোচিত হলো। বিশ্বের অনান্য গিরিখাতের মতো এক সঙ্গে সর্বোচ্চ ৫জন করে দিনে নির্দিষ্ট পরিমানে পর্যটককে এসব গিরিখাত দেখার সুযোগ করে দেয়ার দাবি প্রকৃতি প্রেমীদের।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author