বর্ণিল আতশবাজীতে বিশ্বে নতুন বছর বরণ

জমকালো আয়োজন আর বর্ণিল আতশবাজীতে নতুন বছর ও দশককে বরণ করে নিলো বিশ্ব। নববর্ষের প্রথম প্রহরে আতশের ঝলকানীর মধ্য দিয়ে ২০২০ সালকে বরণ করে নেয় নানা প্রান্তের মানুষ।

ভৌগলিক কারণে বিশ্বে সবার আগে বর্ষবরণ করে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াবাসী। অকল্যান্ডের সুউচ্চু ভবন থেকে পেড়ানো হয় রংবেরংয়ের সব আতশ। দাবানল উপেক্ষা করেই নববর্ষকে ঘিরে আতশবাজীতে মাতে সিডনি।

নানা রংয়ের চোখ ধাঁধানো আলোর ঝলকে রাতের আধার কেটে ঝলমল করে ওঠে জাপানের টোকিও, চীনের বেইজিং, তাইওয়ানের তাইপে, দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলসহ এশিয়ার বিভিন্ন শহর। বর্ণিল আয়োজনে বর্ষরণের উৎসবে যোগ দেয় উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ংও। তবে বিক্ষোভের মধ্য দিয়েই নববর্ষের প্রথম প্রহর কাটায় হংকংবাসী।   

লন্ডনের বিখ্যাত বিগবেন টাওয়ার, লন্ডন আই, রাশিয়ার মস্কোর রেডস্কয়ার, প্যারিসের আইফেল টাওয়ারসহ ইউরোপে বিভিন্ন স্থানে বর্ণিল আতশবাজীর মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নেয়া হয়। নববর্ষ উৎসবে পিছিয়ে ছিলোনা উৎসবের নগরী রিওডি জেনেরিওসহ ব্রাজিলের বিভিন্ন শহর। আলোর নাচনে মেতে ওঠে কোপাকাবানা সৈকত।

বরাবরের মতো সবচেয়ে আকর্ষণীয় লেজারশো ও আতশবাজীর আয়োজন করে দুবাই। প্রথম প্রহরে বিশ্বের সর্বোচ্চ ভবন বুর্জ খলিফা থেকে পোড়ানো আতশে আলোকিত হয়ে ওঠে দুবাই শহর। ভৌগলিক কারণে সবার শেষে বর্ষবরণ উৎসব করে যুক্তরাষ্ট্র। নিউইয়র্কের বিখ্যাত টাইম স্কয়ারে কাউন্টডাউনের পর আতশবাজীর মধ্য দিয়ে নতুন বছর ও দশককে বরণ করে মার্কিনিরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author