নুসরাত হত্যা মামলার রায় বৃহস্পতিবার

ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী
নুসরাত জাহান রাফিকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলার রায় ঘোষণা হতে পারে কাল। জেলার নারী
ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ এ রায় ঘোষণা করবেন।  রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করেন
নুসরাতের পরিবার ও বাদীপক্ষের আইনজীবী। একই প্রত্যাশা স্বজন ও স্থানীয়দের। আর ন্যায়
বিচারে বেকসুর খালাস পাওয়ার আশা জানান আসামীপক্ষ।

গেল ২৬ মার্চ সোনাগাজী ইসলামীয়া ফাজিল
মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদদৌলা তার অফিস কক্ষে নুসরাতকে ডেকে নিয়ে শ্লীলতাহানীর
চেষ্টা করে। এঘটনায় নুসরাতের মা সোনাগাজী থানায় মামলা করেন। এ মামলায় সোনাগাজী
থানা পুলিশ অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করলে মামলা প্রত্যহারে তার অনুসারীরা নুসরাতকে চাপ
দেয়। এতে রাজী না হওয়ায় আলিম  পরীক্ষা দিতে
গেলে ৬ এপ্রিল মাদ্রাসার ছাদে ডেকে নিয়ে সিরাজউদদৌলার অনুসারীরা আগুন দিয়ে নুসরাতকে
হত্যার চেষ্টা করে।  অগ্নিদগ্ধ নুসরাত
চিকিৎসাধীন অবস্থায়  ঢাকা মেডিকেল কলেজ
হাসপাতালের র্বান ইউনিটে গত ১০ এপ্রিল মারা যায়।

এঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ
উদদৌলাকে প্রধান আসামী করে ৮ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেন নুসরাতের ভাই
মাহমুদুল হাসান নোমান। পরে পিবিআই ও পুলিশ ২১ জনকে গ্রেফতার করে। এদের মধ্যে হত্যায় সরাসরি জড়িত ৫জনসহ
১২  জন আসামী  আদালতে 
স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্ধী দেয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই
ইনসপেক্টর শাহআলম ২৯মে  আদালতে ১৬ জনের
বিরুদ্ধে ৮০৮ পৃষ্ঠার চার্জশীট জমা দেন। আর অব্যাহতি দেয়া হয় ৫জনকে।

অভিযুক্ত ১৬ জনের বিরুদ্ধে ২০ জুন অভিযোগ
গঠন করে বিচারিক আদালত। ৪৭ কায্য দিবসে ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ
শেষে রায় ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করলেন
নুসরাতের ভাই ও মামলার বাদিসহ স্বজনদের।নুসরাত হত্যায় জড়িত থাকার প্রমান
আদালতে উপস্থান করা হয়েছে জানিয়ে আসামীদের সর্বোচ্চ সাজা প্রত্যাশা জানান বাদীর
আইনজীবী।

আর ন্যায় বিচারের মাধ্যমে আসামীরা
খালাস পাবেন বলে আশা বিবাদী পক্ষের আইনজীবীর।এদিকে, চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার রায়
ঘোষণাকে ঘিরে আদালত এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে
পুলিশের পক্ষ থেকে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author