জাতিসংঘকে উপেক্ষা করে । শনিবার বাংলাদেশ থেকে ৫ সদস্যের এক রোহিঙ্গা পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে নেপিদো। এদিকে, হামলা-নির্যাতনের মুখে রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা অসংখ্য রোহিঙ্গার নারী মিয়ানমারের সেনাসদস্যদের হাতে বর্বর যৌন সহিংসতার শিকার হয়েছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানান জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। প্রথমবারের মতো এক রোহিঙ্গা পরিবারকে ফিরিয়ে নিলো মিয়ানমার। শনিবার বাংলাদেশ থেকে ৫ সদস্যের পরিবারকে ফিরিয়ে নেয় নেপিদো। মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতি উদ্ধৃত করে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এই খবর জানিয়েছে। মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতিতে রোহিঙ্গা ওই পরিবারকে মুসলিম আখ্যা দিয়ে বলা হয়েছে, ৫ সদস্যের পরিবারটি রাখাইনের তানজিপিওলেটওয়া আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করছে। এর আগে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি চুক্তিও হয়েছে। এদিকে, হামলা-নির্যাতনের মুখে রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গার মধ্যে অসংখ্য নারী মিয়ানমার সেনাদের বর্বর যৌন সহিংসতার শিকার হয়েছেন বলে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের নতুন এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে কর্মরত আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার চিকিৎসক ও অন্যান্য কর্মকর্তার বরাত দিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, সোমবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের মহাসচিবের এ প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনার কথা রয়েছে। মিয়ানমার সেনাদের নির্যাতনের মুখে গেল বছরের ২৫ আগষ্ট থেকে প্রায় সাড়ে ৭ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। এর আগে ১৯৯২ সাল থেকে বিভিন্ন সময়ে পালিয়ে আসে ৫ লাখের মতো। সব মিলিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা প্রায় ১২ লাখ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment