কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা যে হামলা ও ভাঙচুর করেছে, সেটাকে ‘স্বাভাবিক’ মনে করছেন না ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান। তার মতে, এটা প্রাণনাশের উদ্দেশে হামলা হয়েছে বলেই প্রতীয়মান হয়েছে।

সোমবার সকালে উপাচার্য তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান। রোববার বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ঢাবি ক্যাম্পাস ও শাহবাগ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়ায় আন্দোলনকারীরা। এক পর্যায়ে উপাচার্যের বাসভবনে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়।

উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান বলেন, গতকাল রাতে যে তাণ্ডব চালানো হয়েছে, এতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থী সংশ্লিষ্ট নয়, একটি প্রশিক্ষিত ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠী লাশের রাজনীতির জন্য এ তাণ্ডব চালিয়েছে। এই হামলা স্বাভাবিক নয়। হত্যার উদ্দেশেই এ হামলা চালানো হয়েছে।

তিনি বলেন, এই প্রশিক্ষিত সন্ত্রাসী গোষ্ঠী বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনার মতো মুখোশ বেঁধে সরকার পতন, রাষ্ট্রপতন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের  পতনের চেষ্টা চালিয়েছিল। এক্ষেত্রে সরকারের আইন-কানুন আছে, সে অনুযায়ী নিশ্চয় ব্যবস্থা নেবে সরকার।

শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগ তুলে মধ্যরাতেই রাস্তায় নামেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের ছাত্র/ছাত্রীরা। এতে উত্তাল হয়ে পড়ে গোটা ক্যাম্পাস। এসময় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক শাহবাগে এসে সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনায় বসার জন্য দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু এরমধ্যেই ঢাবি ক্যাম্পাসে উপাচার্যের বাসভবনে ওই হামলা চালানো হয়। সেসময় দু’টি মাইক্রোবাস ও মসজিদের সামনে মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগও করা হয়।

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment