অর্থনীতির সব সূচকেই পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। রির্জাভ, রফতানি আয়ের প্রবৃদ্ধি, বিদেশি বিনিয়োগ, রেমিট্যান্স, গড় আয়ু, মাথাপিছু আয় পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ… এমন মন্তব্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের। আর অর্থনীতিবিদ ডক্টর ইব্রাহিম খালেদ বলছেন, অর্থনীতিতে বড় প্রাপ্তি, জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ৭ শতাংশের উপরে। এক্ষেত্রে পাকিস্তান পিছিয়ে প্রায় ৩ শতাংশ।

মানব উন্নয়নে নানা সূচকে পাকিস্তানকে পিছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। বাকি ছিল মাথাপিছু জিডিপি। গেল অর্থবছরে এক্ষেত্রেও পাকিস্তানকে ছাড়িয়েছে বাংলাদেশ। পরিসংখ্যান বলছে, ১৯৬৮ সালে পশ্চিম পাকিস্তানের মাথাপিছু আয় ছিল ৯৯ দশমিক ৮-০ ডলার। বিপরীতে, পূর্ব পাকিস্তানে মাত্র ৪০ ডলার। বর্তমানে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ১৬শ’ ১০ মার্কিন ডলার। পাকিস্তানের ১৩৭০ ডলার।

পাকিস্তানের মানুষের গড় আয়ু ৬৬ বছর আর বাংলাদেশে ৭২ বছর। এদেশে শিশু মৃত্যুহার  হাজারে ৩৭ দশমিক ছয় শতাংশ যা পাকিস্তানের চেয়ে ৫০ শতাংশ কম।

দেশের অর্থনীতির সব সূচকে পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে যাওয়া স্বাধীনতারই ফল বলে মন্তব্য করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর মাথাপিছু জিডিপি’তে পাকিস্তানকে পেছনে ফিলেছে বাংলাদেশ।

আইএমএফ বলছে, ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে বিশ্বের ৩০তম বড় অর্থনীতির দেশ।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment