যার জন্ম না হলে বাঙ্গালি পেত না মাতৃভাষায় কথা বলার অধিকার, যিনি জন্মেছিলেন বলেই বিশ্ব মানচিত্রে স্থান করে নিয়েছিলো একটি নতুন দেশ, তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তার বজ্রকন্ঠের মোহে জেগে উঠেছিলো জনজোয়ার, রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে বাঙ্গালি পেয়েছেলো স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। সেই মহান স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ৯৯তম জন্মদিন আজ।

১৯২০ সালের ১৭ মার্চ। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় শেখ লুৎফর রহমান ও সায়েরা খাতুনের ঘর আলো করে জন্ম নেন শেখ মুজিবুর রহমান। সেদিন কেবাই ভেবেছিল ছোট্ট শিশুটিই হয়ে উঠবে একটি জাতির পথপ্রদর্শক।

চার বোন, দু’ভাইয়ের মধ্য তৃতীয় শেখ মুজিব। ১৯৩৮ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন বেগম ফজিলাতুন্নেসার সঙ্গে। ১৯৪২ সালে গোপালগঞ্জ মিশনারী স্কুল থেকে ম্যাট্রিকুলেশন শেষ করেন তিনি।

রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবীতে ৫২’র ভাষা আন্দোলনে যখন রাজপথ উত্তাল তখন কারাগারে শেখ মুজিব পালন করেন ১৩ দিনের অনশন কর্মসূচী।

৬৬-এর ৬ দফা আর ৭০ সালে নির্বাচন মেনে নেয়নি পশ্চিমা শোষক গোষ্ঠি। ১৯৭১এর ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানের কালজয়ী ভাষণেই আসে স্বধানীতার ঘোষণা।

এ ঘোষণার পরই বীর বাঙ্গালী ঝাপিয়ে পড়ে মুক্তিযুদ্ধে। ত্রিশ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে বাঙ্গালি অর্জন করে  লাল সবুজের স্বাধীন বাংলাদেশ।

মুক্তিযুদ্ধ শেষে কারাগারে বন্দী থাকা বঙ্গবন্ধুকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী ভঙ্গুর দেশটাকে গড়তে যখন নিরলস পরিশ্রম করছিলেন বঙ্গবন্ধু, ঠিক তখনই ছন্দপতন। ১৯৭৫ সাল ১৫ আগষ্ট। একদল বিপথগামী সেনাসদস্য নির্মমভাবে হত্যা করে বাঙ্গালি জাতির প্রেরণার বাতিঘর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

 

 

 

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment