অপিরকল্পিত রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসী। সেবা সংস্থাগুলোর সমন্বয়হীনতার কারণে বছরজুড়েই রাজধানীতে লেগে আছে দুর্ভোগ। এতে বাড়ছে যানজট, নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান কর্মঘণ্টা। সঙ্কট সমাধানে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সমন্বয় বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

রাজধানীতে রাস্তা কাটাকাটি, খোঁড়াখুঁড়ির এই দৃশ্য দেখা যাবে বছরজুড়েই। গ্যাসের কাজ শেষ না হতেই কাটাকাটি শুরু করে ওয়াসা। তেমনি, বিদ্যুতের শেষ হয় তো শুরু করে টেলিফোন কর্তৃপক্ষ। চার সংস্থার সমন্বয়হীনতার মাশুল গুনতে হচ্ছে নগরবাসীকে।

খোঁড়াখুঁড়ির কাজটাও চলে ঠিকাদারের গায়ের জোরে। ফুটপাত এবং রাস্তার ওপরই রাখা হচ্ছে খোঁড়াখুঁড়ির মাটি, কংক্রিটসহ যাবতীয় নির্মাণ সামগ্রী। এতে সৃষ্টি হচ্ছে অসহনীয় যানজট, হেঁটে চলাও মুশকিল। ধূলায় বায়ুদূষণ তো আছেই।

 

নগর পরিকল্পনাবিদের মতে, যদি সেবাদানকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে সমন্বয় এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা যায়, তবেই দুর্ভোগ কমানো সম্ভব।

সংস্কারের নামে মোহাম্মদপুর, ধানমণ্ডি, গুলশান, মতিঝিল, রামপুরা, বাড্ডা,যাত্রাবাড়ীসহ প্রায় সব এলাকাতেই চলছে  টেলিফোন, বিদ্যুৎ, তিতাস গ্যাস ও ওয়াসা কর্তৃপক্ষের খোঁড়াখুঁড়ি।

 

 

 

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment