আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্ররে কারণে সোনালী আঁশ খ্যাত পাট শিল্প ধ্বংসের মুখে দাঁড়িয়ে আছে বলে দাবি করেছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। তার সঙ্গে একমত জানিয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, বিজেএমসি’র অসাধু কর্মর্কতারাও এজন্য কম দায়ী নয়। হারানো গৌরব ফেরাতে ন্যায্যমূল্যে পাট ক্রয়সহ বকেয়া পরিশোধের দাবি জানিয়েছেন তারা।

উপমহাদেশে পাটচাষ শুরু হয় ১৫৭৫ সাল থেকে। তবে পাটপণ্য ব্যবহারের প্রসার ঘটে ১৯ শতকে। ১৯৫০ থেকে ৭০ সাল পর্যন্ত দেশে ৭৭টি জুট মিল গড়ে ওঠে। এই সময়টা পাটের স্বর্ণযুগ হিসেবে পরিচিতি পায়।

আন্তর্জাতিক বাজারে ব্যাপক চাহিদা থাকলেও দেশীয় বাজারে ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় আশির দশক থেকে কমতে থাকে পাট উৎপাদন। দেশের বিভিন্নস্থানে একের পর এক বন্ধ হয়ে যায় সরকারি বেসরকারি পাটকল।  এক সময় দেশের শীর্ষ রপ্তানি খাত ২০০৯ সালে পৌঁছায় ধ্বংসের দ্বারপান্তে।

সোনালী আঁশ খ্যাত পাটশিল্পের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে কৃষককে ন্যায্যদাম দেয়ার পাশাপাশি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের উৎসাহিত করার দাবি জানালেন ব্যবসায়ীরা।

এ শিল্পে ধস নামার পেছনে আর্ন্তজাতিক ষড়যন্ত্র জড়িত বলে দাবি পাট প্রতিমন্ত্রীর। পাটের ঐতিহ্য ফেরাতে বিজেএমসি’কে দুর্নীতিমুক্ত করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment