দেশের উচ্চ আদালতে এখনো উপেক্ষিত বাংলা ভাষার ব্যবহার। এ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন বাংলায় রায় প্রদানকারী সাবেক বিচারপতিরা। তবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছেন, উচ্চ আদালতের সর্বস্তরে শিগগিরই বাংলার ব্যবহার নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভাষার জন্য আত্মদান। বিশ্বের মানচিত্রে সে মর্যাদার লড়াইয়ের ইতিহাস রচনায় অনন্য এক দেশের নাম বাংলাদেশ। ৫২ তে মায়ের ভাষা রক্ষার দাবিতে যেদিন রক্তাত্ব হয়েছিলো বাংলার রাজপথ।

দেশের সর্বস্তরে বাংলা ব্যবহার বাধ্যতামূলক করতে ১৯৮৭ সালে প্রণয়ন করা হয় বাংলা ভাষা প্রচলন আইন।  তবে উচ্চ আদালতেই  তা থেকে গেছে অবহেলিত। অথচ সুপ্রিম কোর্ট রুলসে আদালতের ভাষা হিসেবে প্রথমে বাংলা এবং পরে অন্য ভাষা ব্যবহারের স্পষ্ট নির্দেশনা আছে।

কয়েকজন বিচারপতি ব্যক্তিগত আগ্রহে বাংলায় কয়েকটি রায় দিলেও বাকিরা ইংরেজীতেই সব কাজ করছেন। আর এ নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন বাংলায় রায় দেয়া আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি কাজী এবাদুল হক।

আর পরিভাষা ও আইনের অনুবাদের সমস্যার কথা জানিয়ে আইনমন্ত্রী জানিয়েছেন শিগগিরই সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নেবে মন্ত্রণালয়।

বিচারপ্রার্থীদের কাছে বিচারিক কার্যক্রম বোধগম্য করতে ফ্রান্স, জার্মানি, স্পেন ও নেদারল্যান্ডসসহ বিভিন্ন দেশ উচ্চ আদালতে মাতৃভাষায় কার্যক্রম সম্পন্ন করছে।  ব্যত্যয় ঘটছে শুধু বাংলাদেশে, যে দেশের মানুষ কিনা ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছিলো।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment