কার্যক্রম শুরুর নয় বছর পরও সফলতার মুখ দেখেনি ফেনীর সোনাগাজীর দুগ্ধ শীতলকরণ কারখানা মিল্কভিটা। নানা সমস্যায় জর্জরিত কারখানাটির ভবিষ্যত নিয়েও শঙ্কিত খামারীরা। অভিযোগ উঠেছে প্রতিশ্রুত সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিতের পাশাপাশি দুধের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন খামারীরা। এ জন্যে কর্তৃপক্ষের উদাসিনতাকেও দায় দিচ্ছেন তারা।

২০০৮ সালের ১২ জানুয়ারি ফেনীর সোনাগাজীতে ভাড়া করা বাড়িতে, দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেডের অধীনে, ৫ হাজার লিটার ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন দুগ্ধ শীতলীকরণ কারখানার কার্যক্রম শুরু করে মিল্কভিটা। এরপর বেশী লাভের আশায় গরু,মহিষসহ গবাদি পশুর খামার গড়ে তোলে স্থানীয়রা।

প্রথমদিকে কর্তৃপক্ষ খামারিদের ঋণদানসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিলেও এখন তা অতীত। বর্তমানে অচল হয়ে আছে মিল্কক্যান ও ক্রীম সেপারেশন মেশিন। ঘাস চাষের জন্য জায়গাও বরাদ্দ পাননি খামারিরা। কারখানার প্রধান ভ্যাটেনারী সার্জনের পদও শুন্য দীর্ঘদিন ।

সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নেয়ার কথা জানালেন কারখানার ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক। উৎপাদন বৃদ্ধি ও খামারিদের কল্যাণে কারখানাটির পরিধি বাড়ানোর দাবি স্থানীয়দের।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment