সফলতার মুখ দেখছেই না ফেনীর মিল্কভিটা

কার্যক্রম শুরুর নয় বছর পরও সফলতার মুখ দেখেনি ফেনীর সোনাগাজীর দুগ্ধ শীতলকরণ কারখানা মিল্কভিটা। নানা সমস্যায় জর্জরিত কারখানাটির ভবিষ্যত নিয়েও শঙ্কিত খামারীরা। অভিযোগ উঠেছে প্রতিশ্রুত সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিতের পাশাপাশি দুধের ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন খামারীরা। এ জন্যে কর্তৃপক্ষের উদাসিনতাকেও দায় দিচ্ছেন তারা।

২০০৮ সালের ১২ জানুয়ারি ফেনীর সোনাগাজীতে ভাড়া করা বাড়িতে, দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেডের অধীনে, ৫ হাজার লিটার ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন দুগ্ধ শীতলীকরণ কারখানার কার্যক্রম শুরু করে মিল্কভিটা। এরপর বেশী লাভের আশায় গরু,মহিষসহ গবাদি পশুর খামার গড়ে তোলে স্থানীয়রা।

প্রথমদিকে কর্তৃপক্ষ খামারিদের ঋণদানসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিলেও এখন তা অতীত। বর্তমানে অচল হয়ে আছে মিল্কক্যান ও ক্রীম সেপারেশন মেশিন। ঘাস চাষের জন্য জায়গাও বরাদ্দ পাননি খামারিরা। কারখানার প্রধান ভ্যাটেনারী সার্জনের পদও শুন্য দীর্ঘদিন ।

সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নেয়ার কথা জানালেন কারখানার ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপক। উৎপাদন বৃদ্ধি ও খামারিদের কল্যাণে কারখানাটির পরিধি বাড়ানোর দাবি স্থানীয়দের।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment

eight − 3 =