বেশ কয়েকটি মৌলিক বিষয় অমীমাংসিত থাকায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের জন্য বাংলাদেশ-মিয়ানমারের মধ্যে ‘ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্ট’ নামের মাঠপর্যায়ের চুক্তি চূড়ান্ত হয়নি। সোমবার মিয়ানমারের নেপিডোতে দু’দেশের পররাষ্ট্রসচিবদের নেতৃত্বাধীন যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের প্রথম বৈঠক হয়। তবে সন্ধ্যায় অনিষ্পন্ন এসব খুঁটিনাটি বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। আজ আরেক দফা আলোচনা শেষে চুক্তিটি চূড়ান্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। বৈঠকে বাংলাদেশ গত ২৩ নভেম্বরের চুক্তি অনুযায়ী দুই মাসের মধ্যে প্রত্যাবাসনের প্রক্রিয়া শুরুর ওপর জোর দিয়েছে। বাংলাদেশ বলছে, প্রতি সপ্তাহে অন্তত ১০ হাজার রোহিঙ্গাকে রাখাইনে ফেরত নেওয়া উচিত। তবে মিয়ানমার গড়ে প্রতিদিন ৩০০ করে প্রতি সপ্তাহে পাঁচ দিনে দেড় হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত নেয়ার প্রস্তাব দেয়। বৈঠকে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক বাংলাদেশের ও মিয়ানমারের পররাষ্ট্রসচিব মিন্ট থোয়ে তাঁর দেশের নেতৃত্ব দেন।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment