গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে নীলফামারীতে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঘন কুয়াশায় ঢাকা পরেছে সূর্যের আলো। ব্যঘাত ঘটছে যান চলাচলে। বেশি প্রভাব পরেছে রাজশাহী-নীলফামারীসহ দেশের উত্তর ও দক্ষীনাঞ্চলীয় এলকায়। আবহাওয়া অফিস বলছে, শীত আরো বাড়তে পারে, সঙ্গে শৈত্য প্রবাহ।  এদিকে, শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ডায়রিয়াসহ ঠান্ডাজনিত রোগ।

রাজশাহী, পাবনা, দিনাজপুর ও কুষ্টিয়া অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তীব্র শৈত্য প্রবাহ। শ্রীমঙ্গল ও সীতাকুণ্ডু অঞ্চলসহ ঢাকা, ময়মনসিংহ ও বরিশাল বিভাগ এবং রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের কিছু অংশের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। ঘন কুয়াশা আর কনকনে হিমেল হাওয়ায় অনেকটাই স্থবির স্বাভাবিক জীবন।

ঘন কুয়াশায় ব্যাহত হচ্ছে যান চলাচল।সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন ছিন্নমুল ও খেটে খাওয়া মানুষেরা। শীত নিবারনের চেষ্টা চলছে খড়-কুটোর আগুন জ্বালিয়ে।

এদিকে ঠান্ডজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন অনেকে। এর মধ্যে শিশু রোগীর সংখ্যাই বেশী।আবহাওয়া অফিস বলছে, শীতের প্রকোপ আরো বাড়তে পারে।

 

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment