মিথ্যা তথ্য দিয়েছিলেন ট্রাম্পের উপদেষ্টা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচন কালীন একজন ক্যাম্পেইন ম্যানেজার জর্জ পাপাডোপৌলোস, রাশিয়ার সাথে তার বৈঠকের বিষয়ে এফবিআইয়ের কাছে মিথ্যে তথ্য দেয়ায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন।

তবে, নির্দোষ বলে অর্থ-পাচারের অভিযোগ থেকে রেহাই পেয়েছেন ট্রাম্পের আরেকজন সাবেক ক্যাম্পেইন ম্যানেজার পল মানাফোর্ট।

ঘটনাটি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

২০১৬ সালে মার্কিন নির্বাচনের সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবির রাশিয়ার সাথে যোগাযোগ রক্ষা করেছে বলে যে অভিযোগ আছে, তারই ধারাবাহিকতায় এবারে অভিযোগ উঠেছে ট্রাম্পের নির্বাচন কালীন এই দুই ক্যাম্পেইন ম্যানেজারের বিরুদ্ধে।

পল মানাফোর্টের বিরুদ্ধে অর্থ-পাচার এবং বিদেশী অ্যাক্টিভিস্টদের সাথে লবিং, বিশেষত ইউক্রেনের সাথে লেন-দেন এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ রয়েছে।

মি. মানাফোর্ট রুশ-সমর্থক ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ইয়ানুকোভীচ-এর কাছে থেকে গোপনে অর্থ পেয়ে আসছিলেন বলে অভিযোগ তুলেছিলেন সের্গেই লেস্চেঙ্কো নামে ইউক্রেনীয় এক রাজনীতিক।

যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আদালত মি. মানাফোর্টকে গৃহবন্দী অবস্থায় রেখেছে এবং দশ মিলিয়ন ডলার অর্থ দিতে আদেশ দিয়েছে।

তিনি এটিও স্বীকার করছেন যে, হিলারি ক্লিনটন সম্পর্কে রাশিয়ানরা ইতিবাচক নয় এমন মনোভাবই পোষণ করছিল।

মি. পাপাডোপৌলোস এর বিরুদ্ধে সর্ব প্রথম অভিযোগ আনেন রবার্ট মুলার।

মি. মুলার রাশিয়া এবং ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা টিমের মধ্যে সন্দেহভাজন যোগসাজশের বিষয়টি তদন্ত করছিলেন।

বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মি. পাপাডোপৌলোস-এর এই বিষয়টি মি. ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার সাথে সরাসরি জড়িত।

তাই, বিষয়টি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে বলেও তারা আশঙ্কা করছেন।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment