যুক্তরাষ্ট্র গেলেন সাকিব আল হাসান

সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে যুক্তরাষ্ট্র গেলেন বাংলাদেশ দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। জাতীয় দলের আসন্ন সিরিজগুলোতে খেলতে না পারলেও, সতীর্থদের শুভকামনা জানিয়েছেন তিনি। তবে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নাম না থাকা আর আইপিএলের জন্য টেস্ট সিরিজ থেকে নাম প্রত্যাহারের ইস্যু নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি ওয়ানডের বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

ঠিক ৫০ দিন আগে, সাকিব দেশে ফিরেছিলেন হাসিমুখে। তবে এবার দেশ ছাড়ছেন
বিতর্ক সঙ্গী করে আর গোমড়ামুখে। গেলো কদিন সাকিব ইস্যুতে মুখর দেশের
ক্রীড়াঙ্গন। আইপিএলে দল পাওয়ার পর ভক্ত-সমর্থকদের খুশি সমালোচনায় রূপ নেয়
শ্রীলঙ্কা সফরে টেস্ট খেলতে না চেয়ে ছুটি চাওয়ায়।  

প্রশ্ন ওঠে সাকিবের দেশের প্রতি নিবেদন নিয়েও। এ কারণেই কি না বিমানবন্দরে
কিছুটা এড়িয়েই গেলেন সংবাদমাধ্যমকে। বিতর্কিত ইস্যু নিয়ে মুখ না খুললেও, 
আসন্ন সিরিজগুলোর জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন দলকে। 

সাকিব আল হাসান বলেন, ‘বাংলাদেশের হয়ে খেলা মিস করবো। আসন্ন সিরিজগুলোতে
খেলতে পারলে ভালো হতো। তবে কিছুই করার নাই। বাংলাদেশ দলের জন্য শুভকামনা
থাকবে।’

দেশ ছাড়ার আগে আরও একটা দু:সংবাদ হয়তো সাকিব পেয়েই গেছেন। বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকছেন না দেশ সেরা অলরাউন্ডার। 

চলতি বছর কয়েকটি সিরিজে ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স পর্যবেক্ষণ করে, বিসিবির
সঙ্গে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকা ঘোষণা করার কথা
আছে। আইসিসির নিষেধাজ্ঞার কারণে গত বছর কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ছিলেন না সাকিব
আল হাসান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে
প্রত্যাবর্তন হওয়া সাকিবের নতুন বছরের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফেরার সম্ভাবনা
ছিলো। 

তবে নিউজিল্যান্ড সিরিজের পর এপ্রিলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্টেও খেলতে না
চাওয়া এই অলরাউন্ডারকে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে এবার নাও রাখা হতে পারে
এমন আভাস পাওয়া গেছে। 

তৃতীয় সন্তানের অপেক্ষায় সাকিব-শিশির দম্পতি। সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে মা শিরিন রেজাকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পথে সাকিব।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author