চীনের ঝাওজিন স্বর্ণখনিতে ৯ শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্ধার

চীনের শানডং প্রদেশের হুশানে ঝাওজিন স্বর্ণখনিতে বিস্ফোরণের দুই সপ্তাহ পর আটকে পড়া বাকি ৯ শ্রমিককে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) ইয়ানতাই শহরের মেয়র তাদের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন। তবে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে কিনা, তা এখনও জানা যায়নি।

একদিন আগে ১৩ দিন আটকে থাকার পর, খনি থেকে ১১ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। এখনও নিখোঁজ রয়েছে এক শ্রমিক।

ব্রিটেনের সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানায়, গত ১০ জানুয়ারি চীনের শ্যানডং প্রদেশের হুশান স্বর্ণখনিতে একটি বিস্ফোরণের ফলে ২২ জন শ্রমিক আটকা পড়েন। এই দুর্ঘটনার দুই সপ্তাহ পর কর্তৃপক্ষ ১১ জন শ্রমিকের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদেরকে উদ্ধার করতে পেরেছে দেশটির উদ্ধারকারী দল।

ঝাওজিন নামের ওই খনিটি শানডং উকাইলং ইনভেস্টমেন্টের। এটি চীনের চতুর্থ বৃহত্তম স্বর্ণের খনি। চীনের বিভিন্ন খনিতে প্রায়ই এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। নিরাপত্তা ব্যবস্থার ত্রুটি ও সরকারি বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই এসব খনির কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। ফলে প্রতি বছরই বহু শ্রমিক বিভিন্ন দুর্ঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছে।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় চোংকিং শহরে একটি খনিতে আটকা পড়ে কমপক্ষে ১৮ জনের মৃত্যু হয়। ডায়াসুইডং কয়লা খনিটিতে মোট ২৪ জন আটকা পড়েছিল। কয়েকজনকে সেখান থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও বেশিরভাগ শ্রমিক কার্বন মনোঅক্সাইড গ্যাসের কারণে প্রাণ হারান।

গত বছরের সেপ্টেম্বরেও আরও একটি দুর্ঘটনা ঘটে। সে সময় সংজাও কয়লা খনিতে কার্বন মনোঅক্সাইডের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় কমপক্ষে ১৬ জনের মৃত্যু হয়।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author