যুবতীরা নিজেদের সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা রাখে

কিশোর কিশোরী ও যুবদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে। নীতিমালা প্রনয়ণের মাধ্যমে স্বাস্থ্যকর জীবন যাপনের জন্য উন্নত শিক্ষা ও যুববান্ধব সেবা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। আর সেই লক্ষ্যেই বিশ্বব্যাপী ১৬৩টি সংস্থ্যার সমন্বয়ে একটি কৌশলগত যৌথ কর্মসূচি নিয়ে কাজ করছে রাইট হেয়ার রাইট নাও। সংস্থাটির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর গুলশানে এক হোটেলে এর উদ্বোধন করেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রেজাউল হক।

বাংলাদেশের ৫৯ শতাংশ নারীর ১৮ বছরের আগেই বিয়ে হয়ে যায়। ২১ বছরেই মা হয়  হাজারে ১১৩ জন। রাইট হেয়ার রাইট নাও বলছে, কম বয়সে বিয়ে হওয়ায় বেশীর ভাগ কিশোর- কিশোরীরাই যৌন ও প্রজননস্বাস্থ্য এবং তাদের অধিকার বিষয়ে থেকে যাচ্ছে অজ্ঞ।

তাই বিষয়টি পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। যুববান্ধব সেবা নিশ্চিত করতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। এক্ষেত্রে আরএইচআর এন’এর সহযোগিতা পেলে সরকারের কাজ আরো বেগবান হবে বলে মনে করেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান।

আরইচআরএন বাংলাদেশ প্লাটফর্মের সিদ্ধান্ত প্রনয়ণ কমিটিতে ৫৫ ভাগ এবং কার্যকরী কমিটিতে ৩০ ভাগ কিশোর-কিশোরী ও যুবদের অংশগ্রহণ থাকবে।

 

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment