বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৮ লাখ ৪৩ হাজার ছাড়ালো

বিশ্বে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি দিন দিন ভয়ংকর হয়ে উঠছে। বিশ্বজুড়ে চলছে মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ।

জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের আজ রবিবার (৩ জানুয়ারি) সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, বৈশ্বিক এ মহামারিতে আক্রান্তের হার দ্রুত বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় এ সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ কোটি ৪৯ লাখ ৮২ হাজার ২৬৫ জন। আর বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ লাখ ৪৩ হাজার ৫৪৯ জনে। ভাইরাসটিতে আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৬ কোটি ৯৬ হাজার ৫৩১ জন।

ভাইরাসটির সংক্রমণ শুরুর একটা সময় যুক্তরাষ্ট্র করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর নিরিখে বিশ্বে শীর্ষ স্থানে পৌঁছে যায়। আজ পর্যন্ত শীর্ষস্থানেই রয়েছে দেশটিতে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ২ কোটি ৯ লাখ ৪ হাজার ৭০১ জন মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ৬৮২ জনের।

পৃথিবীর
দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত রয়েছে করোনায় আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয়
স্থানে ও মৃত্যু নিয়ে আছে তৃতীয় অবস্থানে। দেশটিতে মোট আক্রান্ত এক কোটি ৩
লাখ ২৪ হাজার ৬৩১ জনে পৌঁছেছে। মারা গেছে মোট ১ লাখ ৪৯ হাজার ৪৭১ জন। 

ল্যাটিন
আমেরিকার দেশ ব্রাজিল আক্রান্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকলেও
সর্বাধিক মৃতের সংখ্যায় রয়েছে দ্বিতীয়তে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ৭৭ লাখ
১৬ হাজার ৪০৫ জন ও মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৯৫ হাজার ৭৪২ জনের।

তালিকায় রাশিয়ার অবস্থান চতুর্থ। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ৩২ লাখ ১২ হাজার ৬৩৭ জন ও মৃত্যু হয়েছে ৫৮ হাজার ২ জনের।

আক্রান্ত
দেশের তালিকায় ফ্রান্স রয়েছে পঞ্চম স্থানে। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ২৬ লাখ
৪৩ হাজার ২৩৯ জনে পৌঁছেছে। মারা গেছে মোট ৬৪ হাজার ৯২১ জন। 

আক্রান্ত
দেশের তালিকায় যুক্তরাজ্য রয়েছে ষষ্ঠ স্থানে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ২৫
লাখ ৯৯ হাজার ৭৮৯ জন ও মৃত্যু হয়েছে ৭৪ হাজার ৫৭০ জনের।

তুরস্ক আক্রান্তের তালিকায়
সপ্তম স্থানে উঠে এসেছে, ইতালি অষ্টম স্থানে, স্পেন নবম ও জার্মানি দশম
স্থানে রয়েছে। আর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৭তম। সবচেয়ে লক্ষ্যণীয় যে
বিষয়টি তা হলো, এই এক বছরের মধ্যে চীন সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষ স্থান থেকে
৮২ নম্বর স্থানে নেমে এসেছে।

গত
বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায়
প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১
জানুয়ারি। 

চলতি বছরের ১৩
জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন
দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে। গত ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো
রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে।

চলতি
বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি
ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author