মহামারি মোকাবেলায় জাতিসংঘে শেখ হাসিনার তিন প্রস্তাব

উন্নত দেশগুলোতে উদ্ভাবিত করোনা ভাইরাসের টিকার মেধাস্বত্ব উন্মুক্ত করে দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। করোনা মহামারি নিয়ে জাতিসংঘের এক বিশেষ সভায় তিনি এই আহ্বান জানান।

জাতিসংঘের সদর দপ্তরে আয়োজিত এই সভায় শুক্রবার (৪ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ সময় ভোর পৌনে তিনটায় ভার্চুয়ালি যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। এ সময়, পরিস্থিতি মোকাবেলায় তিন দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন তিনি।

করোনা মহামারি মোকাবেলায় বিশ্ব নেতাদের এক প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসতেই সাধারণ পরিষদের ৩১তম বিশেষ অধিবেশন আয়োজন করে জাতিসংঘ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। বলেন,বৈশ্বিক মহামারি ঠেকাতে পুরো বিশ্বকে এক হয়ে কাজ করার বিকল্প নেই।

জাতিসংঘের সদর দপ্তরে মূল
আয়োজনে ভার্চুয়ালি অংশ নেন সদস্য দেশগুলোর রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা। করোনায়
বৈশ্বিক বিপর্যয় তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, চলমান মহামারি সবাইকে পিছিয়ে
দিলেও বিশ্বকে আবারো ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে।

বিশ্বজুড়ে নিয়ন্ত্রণে না এলে কোন
একক অঞ্চলে এ ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব নয়। মহামারি মোকাবেলায় নতুন তিনটি সুনির্দিষ্ট
প্রস্তাবও তুলে ধরেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

প্রস্তাবনাগুলো হলো, বিভিন্ন দেশে উদ্ভাবিত করোনার মানসম্পন্ন টিকাগুলো সঠিক সময়ে, স্বল্পমূল্যে সবার জন্য নিশ্চিত করা; উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনগুলো ট্রিপস চুক্তির আওতায় মেধাস্বত্ব উন্মুক্ত করা এবং মহামারির কারণে উন্নয়নশীল দেশগুলোকে যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হচ্ছে, তার স্বীকৃতি দেয়া। উন্নয়নশীল দেশগুলোতে স্থানীয়ভাবে টিকা তৈরির উপর জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সুযোগ পেলে করোনার টিকা তৈরির সক্ষমতা বাংলাদেশের আছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author