আগাম আলু চাষে ব্যস্ত দিনাজপুরের কৃষকরা

আগাম আলু চাষে ব্যস্ত দিনাজপুরের কৃষকরা। অনুকুল আবহাওয়ায় থাকায় ভালো ফলনের পাশাপাশি লাভের স্বপ্ন দেখছেন তারা। ভালো দামের আশায় দিনাজপুরের বিভিন্ন উপজেলায় আগাম জাতের আলু বীজ বপনে ব্যস্ত কৃষক। বাজারে আলুর দাম চড়া, তাই মৌসুমের প্রথম দিকে আগাম জাতের আলু উৎপন্ন হলে ভালো দাম পাওয়া যাবে এমনটাই আশা কৃষকের। 

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, এবার দিনাজপুর জেলায় চলতি মৌসুমে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪৪ হাজার ৬৪০ হেক্টর জমিতে। চলতি মাস থেকে শুরু হয়েছে আগাম জাতের আলু বীজ বপন। এ চাষ চলবে আগামী জানুয়ারি মাস পর্যন্ত। তবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দিনাজপুর জেলায় আগাম উন্নত জাতের আলু বীজ বপন করেছে উফসি ২ হাজার ৪০৫ হেক্টর এবং স্থানীয় জাতের ৪০ হেক্টর জমিতে।

চলতি মৌসুমে উচ্চ ফলন প্রাপ্তির লক্ষ্যে কৃষকদের মাঝে আলু ও সবজি চাষের ওপর বিভিন্ন প্রশিক্ষণসহ উন্নত মানের বীজ সংগ্রহ, সুষম মাত্রার রাসায়নিক ও জৈব সার প্রয়োগের পরামর্শ দিয়ে উদ্বুদ্ধ করছেন উপজেলা কৃষি বিভাগ। কৃষকরা জানান, চিরিরবন্দর ও খানসামা উপজেলার অধিকাংশ জমি উঁচু আর আগাম জাতের ধান কাটার পর শীতের মৌসুম আসার আগেই এসব জমিতে চাষিরা আগাম ফলনশীল জাতের গ্রানুলা আলু বীজ বপন করছেন। চিরিরবন্দর উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের ইছামতি নদীর উত্তর-দক্ষিণ তীর এবং খানসামা উপজেলার গোয়ালডিহি ইউনিয়নের উঁচু জমিগুলোতে রবি মৌসুমের শুরুতে আলু বীজ বপন করেছেন কৃষকরা। কাহারোল উপজেলায় আগাম জাতের আমন ধান ঘরে তুলেছে অনেক কৃষক।

ইতোমধ্যে এসব উচু জমিতে আগাম জাতের আলু চাষের বিভিন্ন প্রস্তুতিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। এ ছাড়াও জেলার বিভিন্ন উপজেলার নদীর পার্শ্ববর্তী জমিতে এসব আগাম জাতের আলু চাষ করছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এসব আলুর বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন কৃষকরা। কাহারোলের চামদুয়ারী গ্রামের কৃষক রবিউল ইসলাম বলেন, উপজেলার মাটি আলু চাষের জন্য বিশেষ উপযোগী হওয়ায় অধিকাংশ কৃষক অন্যান্য ফসলের চেয়ে আলু চাষে বেশি আগ্রহী।

আলু উদ্বৃত্ত জেলা হিসাবে
পরিচিত দিনাজপুরে একটি আলু গবেষণা কেন্দ্র স্থাপনের উদ্যোগ নিবে সরকার-এমনটি
প্রত্যাশা জেলাবাসীর।

উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে উপজেলা কৃষি বিভাগ প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিচ্ছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author