প্রতিবেশিদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থানে বিশ্বাসী বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেশিদের সঙ্গে
বন্ধুত্বপূর্ণ সহাবস্থানে বিশ্বাসী বাংলাদেশ, তবে কোন আগ্রাসী  আক্রমণ এলে তা মোকাবলার প্রস্তুতি আছে বলে
জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাতে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে দেয়া
বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রতিরক্ষার পাশাপাশি দেশ গঠনেও এগিয়ে আসতে হবে এই বাহিনীকে। সরকার
প্রধান বলেন, করোনা মোকাবেলায় প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছে সশস্ত্র বাহিনী।  

করোনায় স্বাস্থ্যবিধির কারণে
এবার সীমিত পরিসরে পালিত হয় সশস্ত্র বাহিনী দিবস। এ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ
হাসিনার ভাষণ প্রচার করা হয় সরকারি টেলিভিশন ও বেতারে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের
মধ্য দিয়ে ক্ষুদ্র পরিসরে জন্ম নেয়া বাহিনী আজ মহীরূহে পরিনত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা
মোকাবেলায় সম্মুখসারীর যোদ্ধা হিসেবে মাঠে ছিলো সেনাবাহিনী। বিমান ও নৌ বাহিনীর
সদস্যরাও প্রসংশনীয় ভূমিকা রেখেছেন।

প্রাকৃতিক দুর্যোগে উদ্ধার
তৎপরতার পাশাপাশি অবকাঠামো উন্নয়নে সশস্ত্র বাহিনীর অবদান তুলে ধরেন সরকার প্রধান।
বলেন, বহির্বিশ্বেও দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে বাহিনীর সদস্যরা।

বলেন, গত এক দশকে সশস্ত্র
বাহিনীর প্রতিটি শাখা আধুনিক সমরাস্ত্র ও উপকরণে সমৃদ্ধ হয়েছে। ফলে আগ্রাসী আক্রমণ
মোকাবেলায় সক্ষম বাংলাদেশ।

সততা, নিষ্ঠা, দেশপ্রেম ও
পেশাগত দক্ষতায় বলীয়ান হয়ে দেশ গড়ার কাজে অবদান রাখতে বাহিনীর সদস্যদের প্রতি
আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author