চিকিৎসা না পেয়ে জমজ নবজাতকের মৃত্যু

চিকিৎসা না পেয়ে জমজ নবজাতকের মৃত্যুর ঘটনায় তিন হাসপাতালের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছেন হাইকোর্ট। দায়িত্ব অবহেলার জন্য মুগদা ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল, শিশু হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। বিচারপতির ফোনের পরও শিশু হাসপাতালে ভর্তি না করায় ক্ষোভ জানান আদালত। এদিকে, দুই সন্তানকে হারিয়ে শোকে পাথর আবুল কালাম আজাদ দম্পতি।

জানা যায়, হাসপাপতালে নেয়ার পথে সিএনজি অটোরিক্সার মধ্যেই একটি সন্তান প্রসব করেন হাইকোর্টের এমএলএসএস আবুল কালাম আজাদের স্ত্রী। পরে মুগদা ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের করিডোরে আরেকটি সন্তানের জন্ম হয়।

এ হাসপাতালে এনআইসিইউ না থাকায় জমজ সন্তানকে শিশু হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসকরা। শিশু হাসপতালে আইসিইউ খালি না থাকায়, সেখানে সাধারণ ওয়ার্ডে ভর্তি করতে ৫ হাজার টাকা চাওয়া হয়। কিন্তু এতো টাকা না থাকায় ভর্তি নেয়নি কর্তৃপক্ষ। শিশু হাসপাতাল থেকে নবজাতককে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়ে যান আজাদ। কিন্তু সেখানেও ভর্তিতে কালক্ষেপণ হলে শিশু দুটির মৃত্যু হয়।

মুগদা ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা দাবি করেন নবজাতকের মৃত্যুর পেছনে তাদের কোন অবহেলা নাই।

মৃত শিশু নিয়ে হাইকোর্টে আসেন পিতা। অবহেলায় জমজ নবজাতকের মৃত্যুর জন্য তিনটি হাসপতালের বিরুদ্ধেই রুল জারি করে, ব্যাখ্যা চেয়েছেন আদালত। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উত্তর জানার পর, পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান ডেপুটি অ্যাটনি জেনারেল এ এ এম আমিন উদ্দিন মানিক।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author