করোনায় বেড়েছে অনলাইন-মোবাইল ব্যাংকিং সেবা

দেশে বাড়ছে অনলাইন ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবার পরিধি। করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে বেড়ে যায় লেনদেনও। আগামী দিনের কথা মাথায় রেখে ডিজিটাল ব্যাংকিংয়ে মনোযোগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। পাশাপাশি হ্যাকিং বা রিজার্ভ চুরির মতো ঘটনা এড়াতে সাইবার নিরাপত্তায় বিনিয়োগ বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

করোনায় ঢিমেতালে চলা জনজীবনে জনপ্রিয়তা বেড়েছে অনলাইন ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবার। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বলছে, মার্চ থেকে জুলাই- এ পাঁচ মাসে এক কোটির বেশি গ্রাহক মোবাইল ব্যাংকিং সেবায় নিবন্ধিত হয়েছেন। এ সময়ে লেনদেন বেড়েছে ২৩ হাজার ২১৫ কোটি টাকারও বেশি। যদিও নিউ নরমাল পরিস্থিতিতে আগস্ট থেকে কমছে লেনদেন।

প্রযুক্তির বদৌলতে এক দশকে ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে গেছে মানুষের দোরগোড়ায়। অনলাইন ব্যাংকিং, বুথ ও এজেন্ট সার্ভিসের মতো
সেবা পেয়েছে তুমুল জনপ্রিয়তা। দেশে জুন পর্যন্ত ব্যাংক হিসাবের সংখ্যা ১১ কোটি ১১ লাখ
৬৭ সহস্রাধিক। আগস্টে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক
৯ কোটি ২৯ লাখ ৩৭ হাজার এবং এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক এক কোটি ৯ হাজার ছাড়িয়েছে।

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, যত বেশি ডিজিটালাইজড হবে, ব্যাংকগুলোর কার্যক্রমও তত শক্তিশালী হবে। যার প্রমাণ মোবাইল ও এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মত বিষয়। প্রযুক্তি নির্ভরতার সঙ্গে বেড়েছে হ্যাকিংসহ নানারকম ঝুঁকি। এসব প্রতিরোধে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া এখন সময়ের দাবি। রিজার্ভ চুরির মত দুর্বৃত্তায়ন ঠেকাতে সাইবার নিরাপত্তা খাতে বিনিয়োগ বাড়ানোর পরামর্শও দেন অর্থনীতিবিদরা।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author