সীমান্তে প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করলো ইরান

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সেনাবাহিনীর প্রধান ও বিমান প্রতিরক্ষা সদরদপ্তরের কমান্ডার মেজর জেনারেল আব্দুর রহিম মুসাভি বলেছেন, দেশের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে যখন আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষ চলছে তখন ইরান এই পদক্ষেপ নিল।

নাগার্নো-কারাবাখ নিয়ে আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যে তিন দফা
যুদ্ধবিরতি চুক্তি হলেও কোনো পক্ষ তা পুরোপুরি কার্যকর করতে পারেনি।
সর্বশেষ গত রোববার আমেরিকার মধ্যস্থতায় আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যে
ওয়াশিংটনে যুদ্ধবিরতি চুক্তি হয় এবং সোমবার স্থানীয় সময় সকাল আটটায় তা
কার্যকর শুরু হলেও কয়েক ঘন্টার মধ্যে সে যুদ্ধবিরতি চুক্তি ভেঙে যায়।
এজন্য দু’পক্ষ পরস্পরকে দায়ী করছে।

নাগার্নো-কারাবাখ সংঘর্ষ
সম্পর্কে মেজর জেনারেল আব্দুর রহিম মুসাভি বলেন, তাকফিরি দায়েশ সন্ত্রাসী
এবং ইহুদিবাদীরা সারা বিশ্বের সব জায়গায় সক্রিয় রয়েছে। তাদের এই উপস্থিতি
নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করবে, পাশাপাশি বিদ্বেষ ছড়াবে। এ অবস্থায় ইরান
তার উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করেছে এবং
সীমান্তে ইরানি জনগণের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজন হলে
আরো সেনা মোতায়েন করা হবে।

সীমান্তের নিরাপত্তা ও জনগণের জীবন
রক্ষার ক্ষেত্রে ইরানের সামরিক বাহিনী কোনমতেই আপস করবে না বলে তিনি ঘোষণা
করেন। এটি ইরানের সামরিক বাহিনীর নীতিগত দায়িত্ব বলেও জেনারেল আবদুর রহীম
মুসাভি উল্লেখ করেন।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author