যুদ্ধবিরতিতে সম্মত  আজারবাইজান-আর্মেনিয়া

আবারও যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর ও দু’দেশের যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়। যুদ্ধরত দু’দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের সঙ্গে শনিবার বৈঠক করেন মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের ডেপুটি সেক্রেটারি স্টিফেন বিগান। এরপরই যুদ্ধবিরতিতে সম্মতি দেয় আজেরি ও আর্মেনিয় সরকার।

ফ্রান্স, রাশিয়া ও মার্কিন প্রতিনিধিদের সঙ্গে নাগোরনো –কারাবাখ ইস্যুতে গঠিত মধ্যস্থতাকারী কমিটি আগামী ২৯ অক্টোবর আবারও বৈঠকে বসবে বলে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

রাশিয়ার মধ্যস্থতায় অবশেষে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। শনিবার দুপুর থেকে এ যুদ্ধবিরতি কার্যকর হবে। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের আহ্বানে মস্কোয় শান্তি আলোচনায় বসে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়া। বৈঠকে ওই দুই দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পাশাপাশি রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীও অংশ নেন।

নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলটি নিয়ে গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে আজারবাইজান ও
আর্মেনিয়ার মধ্যে নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হয়। এজন্য দুদেশ পরস্পরকে দায়ী
করেছে।

আন্তর্জাতিকভাবে অঞ্চলটি আজারবাইজানের বলে স্বীকৃত, কিন্তু ১৯৯০’র দশক
থেকে নৃতাত্ত্বিক আর্মেনীয়রা নিয়ন্ত্রণ করছে। নতুন করে জড়িয়ে পড়া লড়াইয়ে
দুই প্রতিবশীর সংঘর্ষে সেনা সদস্যসহ এ পর্যন্ত তিন শতাধিক মানুষ প্রাণ
হারিয়েছেন।

আজারবাইজানের দখলীকৃত ভূখণ্ড ছেড়ে দিতে আর্মেনিয়ার প্রতি আহ্বান
জানিয়েছে দেশ দুটির প্রতিবেশী ইরানও। একইসঙ্গে যুদ্ধ বন্ধ করে আলোচনার
মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে বলেছে।

মস্কোতে শুক্রবার বিকাল ৩টা থেকে টানা তিন ঘণ্টা ওই শান্তি আলোচনা চলে।
বৈঠকে দুই দেশ সময়িক যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়েছে। বন্দিবিনিময় ও লাশ
হস্তান্তরসহ এ সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য শনিবার আবারও আলোচনায় বসার কথা
রয়েছে।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author