জিয়া রহমানের বিরুদ্ধে মামলা

মুসলিমদের আসসালামু আলাইকুম এবং আল্লাহ হাফেজ বলার মাধ্যমে জঙ্গিবাদ বিস্তার ঘটাচ্ছে- এমন বক্তব্যের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

আজ রোববার (২৬ অক্টোবর) সকালে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়েরের আবেদন করেন মাসিক আল বাইয়্যিনাত ও দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক মুহম্মদ মাহবুব আলম। বিচারক আসসামছ জগলুল হোসেনের আদালতে এ মামলাটি দায়ের করা হয়।

ধর্মীয় উস্কানি দেয়ায় শিক্ষক জিয়া রহমানের গ্রেফতার ও শাস্তি দাবি করেছেন মুসলিম সম্প্রদায়। তবে যদি অজ্ঞতাবশত এ কাজ করে থাকেন, তাহলে দেশবাসীর কাছে তাকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা। অন্যদিকে, জিয়া রহমানের এমন বক্তব্যে বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন তার সহকর্মী ও বুদ্ধিজীবীরা।

একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টক শোতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক জিয়া রহমানের এ বক্তব্য নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরী হয়েছে ধর্মপ্রাণ মানুষের মধ্যে। এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাও হয়েছে।

ধর্ম বা রাজনৈতিক মতাদর্শ নিয়ে কারো দ্বিমত থাকতেই পারে। কিন্তু জেনেবুঝে কারো বিশ্বাসে আঘাত করা অধবা ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা করা অবশ্যই শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলেন ইসলামী চিন্তাবিদ হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ আজহারুল ইসলাম,

জিয়া রহমানের বিতর্কিত মন্তব্যে অস্বস্তিতে পড়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা। এ নিয়ে অস্বস্তি লুকোতে পারেননি সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী ও সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানের মত বিজ্ঞজনেরাও।

ধর্মনিরপেক্ষ
বাংলাদেশে ধর্মীয় উস্কানিদাতাদের বিরুদ্ধে সরকারকে সচেতন থাকার তাগিদ দিয়েছেন তারা।     

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author