মানবাধিকার পরিষদে আসন লাভে ব্যর্থ সৌদি

জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদে আসন লাভে ব্যর্থ হলো সৌদি আরব।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সর্বোচ্চ চেষ্টার পরও ভোটাভুটিতে হেরে যায় দেশটি। এরআগে সৌদি আরবের বিরুদ্ধে ভয়াবহ রকমের মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তোলে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।

এশিয়া প্রশান্ত মহসাগরীয় অঞ্চলের জন্য নির্ধারিত চারটি আসনে চীন, পাকিস্তান, নেপাল ও উজবেকিস্তানের কাছে হেরে যায় সৌদি আরব। জেনেভাভিত্তিক মানবাধিকার পরিষদে নির্বাচিত সদস্য দেশগুলো স্বদেশে এবং বিদেশে মানবাধিকার উন্নয়ন এবং সুরক্ষার জন্য সর্বোচ্চ মান তুলে ধরবে। তবে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলছে, সৌদি আরব ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় জড়িত। দেশটিতে মানবাধিকার কর্মী এবং রাজনৈতিক ভিন্নমতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে মারাত্মক দমন পীড়ন চালানো হয়।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ সৌদি আরবকে সিরিয়াল মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী দেশ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। নিজের বিরুদ্ধে এমন ভয়াবহ সব অভিযোগের পর জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদে দেওয়া তহবিল প্রত্যাহারের হুমকি দিয়েছে রিয়াদ।

২০১৫ সালের ২৬ মার্চ থেকে সৌদি আরব ইয়েমেনে সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে যাচ্ছে। এতে এখন পর্যন্ত সাত হাজারেও বেশি শিশু হতাহত হয়েছে। এই প্রসঙ্গটি উল্লেখ করে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের জাতিসংঘ বিষয়ক পরিচালক লুইস চার্বোনিউ বলেছেন, শিশু হত্যাকারীরা মানবাধিকার পরিষদের সদস্য হতে পারে না।

মানবাধিকার ফোরামে দেশটিকে স্থান না দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বানও জানায় তারা। সাধারণ পরিষদের গোপন ব্যালটে তিন বছরের জন্য মানবাধিকার পরিষদে স্থান পেয়েছে বলিভিয়া, যুক্তরাজ্য, চীন, কিউবা, ফ্রান্স,পাকিস্তানসহ ১৫টি দেশ।

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author